ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জন করতে চাইলে

করেছে Sabiha Zaman

সাবিহা জামান: আমাদের মনের ভাব প্রকাশের সবচেয়ে বড় মাধ্যম হচ্ছে ভাষা। নিয়ম-অনিয়ম, মতামত, সত্য-মিথ্যা, মান-অভিমান সবকিছুই যেন আবদ্ধ আছে ভাষার মায়াজালে। ভাষা না থাকলে আমরা হয়তো এত সাবলীলভাবে নিজেকে তুলে ধরতে পারতাম না। আমাদের মাতৃভাষা বাংলা, এ ভাষাতেই আমরা নিজেদের ভাবনাচিন্তার জানান দিয়ে অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করি। সব দেশের মানুষের জন্যই তাদের প্রাণের ভাষা হচ্ছে মাতৃভাষা বা মায়ের ভাষা। কারণ, এ ভাষাতেই আমাদের বেড়ে ওঠা।
বর্তমান সময়ে শুধু মায়ের ভাষা জানাতেই থেমে থাকলে চলবে না। জানতে হবে ইংরেজি ভাষাও। ইংরেজি ভাষা ব্যবহার করতে হবে দক্ষতার সঙ্গে। এর কারণ ইংরেজি হচ্ছে আন্তর্জাতিক ভাষা। বিশ্বে বিভিন্ন ভাষার ব্যবহার রয়েছে, কিন্তু যখন ভিন্ন দেশের মানুষ কথা বলে তারা যোগাযোগের জন্য ইংরেজি ভাষাই ব্যবহার করে। বিশ্বের সব দেশ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো ইংরেজি ভাষাতেই প্রকাশ করে। বিশ্বের বেশির ভাগ বই ইংরেজি ভাষাতেই প্রকাশ করা হয়েছে। যদি উচ্চশিক্ষা নিতে চাও, সে ক্ষেত্রেও দক্ষতা থাকতে হবে ইংরেজি ভাষায়।

কীভাবে সহজে ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জন করবে
আমরা অনেকেই ইংরেজি ভাষাকে ভয় পাই। ইচ্ছা থাকলেও আমরা দীর্ঘ সময় ব্যয় করেও অনেকে ইংরেজি শিখতে পারি না। যার মূল কারণ আমরা সঠিক নিয়ম জানি না ইংরেজি শেখার। চলো আজ জেনে নেওয়া যাক সহজে ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জন করার সহজ উপায়গুলো।

লক্ষ্য ঠিক করা
ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জন করার জন্য সবার আগে নিজের লক্ষ্য ঠিক করে ফেলো। এই যেমন আমি ছয় মাসের ভেতরে ইংরেজিতে ভালোভাবে কথা বলতে চাই, আমি চার মাস পর ইংরেজিতে যেকোনো ধরনের লেখার দক্ষতা অর্জন করতে চাই। এভাবে প্রথমেই সময় হিসাব করে লক্ষ্য সেট করে নিতে হবে। সময় নির্ধারণ করে কাজ করলে পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করা সহজ হয়ে যায়।

শব্দভান্ডার
প্রচুর নতুন ইংরেজি ভাষা শিখতে হবে। প্রতিদিন কম করে হলেও ৫ থেকে ১০টি নতুন ইংরেজি শব্দ জানতে হবে এবং এগুলো প্রতিদিন তিনবার করে ব্যবহার করতে হবে। একটা নোটবুকে যে নতুন শব্দগুলো শিখছ, সেগুলো লিখে রাখো এবং সপ্তাহে এক থেকে দুবার চোখ বুলিয়ে নাও তোমার শেখা নতুন ইংরেজি শব্দে।

গ্রামার নিয়ে ভাবনা নয়
যখন তুমি একদম নতুন অবস্থায় ইংরেজি শিখছ, তখন গ্রামারের ভুল নিয়ে মাথা ঘামাবে না। কারণ, গ্রামার নিয়ে বেশি চিন্তা করলে তুমি যে ইংরেজি ভাষায় কথা বলার চেষ্টা করবে, তাতে বাধা পড়বে। গ্রামারের ভুল হলে হোক, কথা বলা থামানো যাবে না। একটা সময়ে ভুল কমে আসবে কিন্তু শেখার আগেই যদি থেমে যাও, তাহলে আর শেখাই হবে না।

ইংরেজি বই পড়া
যেকোনো ভাষা শেখার ক্ষেত্রে ওই ভাষায় বেশি সময় দিতে হয়। তোমার যদি গল্পের বই পড়তে ভালো লাগে, তবে এবার থেকে না হয় ইংরেজি বই পড়ো। ইংরেজি বই ও সংবাদপত্র পড়ার চেষ্টা চালিয়ে যাও। এতে করে সহজে বিভিন্ন ইংরেজি শব্দের সঙ্গে পরিচিত হতে পারবে। তার সঙ্গে সেগুলোর ব্যবহার জেনে নিজেও বলার চেষ্টা করতে পারবে।


সব সময় ইংরেজি পড়তে গেলেই ডিকশনারির ব্যবহার করবে না। আগে কিংবা পরের শব্দের অর্থ জানা থাকলে সেগুলো দিয়ে যে শব্দ জানো না তার অর্থ বের করার চেষ্টা করো। এটা খুব উপকারী একটি টেকনিক। তুমি যে অর্থ ভাবছিলে, তা ঠিক আছে কি না যাচাই করে নেবে, দেখবে আসতে আসতে এভাবে একসময় তুমি নতুন শব্দ সামনে এলেও সাবলীলভাবে ইংরেজি পড়তে পারবে।

ইংরেজি গান ও মুভি
গান আর মুভি নিয়ে সময় কাটাতে কার না ভালো লাগে বলো। তোমারও নিশ্চয়ই ভালো লাগে নাকি? শোনো যদি তুমি সহজে ও দ্রুত ইংরেজি শিখে নিতে চাও, তবে এবার থেকে ইংরেজি গান শুনবে আর দেখবে ইংরেজি সাবটাইটেল দেওয়া মুভি। এতে করে সহজেই তোমার যেমন ইংরেজি শোনার দক্ষতা আসবে, তার সঙ্গে আসবে কীভাবে ইংরেজিতে বিভিন্ন শব্দ উচ্চারণ করা হয় তার ধারণা।
নিয়মিত ইংরেজি গান শোনার ফলে তুমি যেমন দ্রুত ইংরেজি শব্দের অর্থ জানতে পারবে, তার সঙ্গে ইংরেজি বলতেও সাহায্য করবে ইংরেজি গান। তাই প্রচুর ইংরেজি মুভি দেখো আর গান শোনো।

ইংরেজিতে চিন্তা করা
আমরা কিছু করার আগে কী চিন্তা করি। অনেক সময় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমরা চিন্তা করি। আমাদের প্রতিদিনের একটি বড় অংশ কেটে এই চিন্তার কাজে এবার থেকে চিন্তা করার সময় ইংরেজিতে চিন্তা করবে। এতে প্রথমে কষ্ট হলেও সময়ের সঙ্গে ঠিকই হয়ে যাবে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইংরেজি
আমরা আমাদের অনেকটা সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম যেমন ফেসবুক, টুইটার কিংবা হোয়াটস্যাপের মতো মাধ্যমগুলোতে কাটাই। আমরা কিন্তু এ সময়েও ইংরেজিতে কাজে লাগাতে পারি। যখন বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলবে, ইংরেজিতে কথা বলো। চ্যাটিং করার সময়ে সেটাও ইংরেজিতেই করো। এতে করে কথা বলা আর লেখা দুটো ক্ষেত্রেই তুমি ইংরেজি ব্যবহার করতে পারবে সহজে।
ফেসবুকে আমরা বিভিন্ন পোস্ট দিই। চাইলে প্রথম অবস্থায় ছোট পোস্টগুলো ইংরেজিতে দিতে পারো। এমনকি বিভিন্ন গ্রুপ থাকে, যেগুলোও ইংরেজি শেখার জন্য অনেকেই কাজ করছে, সেসব গ্রুপে যুক্ত হয়ে যাও। বন্ধুরা মিলে মেসেঞ্জার কিংবা হোয়াটসঅ্যাপে ইংরেজিতে কথা বলতে পারো। এটা খুব মজার আর সহজ টেকনিক, যেটা তোমার ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জনের রাস্তা আরও সহজ করে দেবে।

ইউটিউব
আমাদের সময় কাটানোর একটি প্রিয় ক্ষেত্র হচ্ছে ‘ইউটিউব’। আমরা বিনোদনের মাঝেই অনেকটা সময় ব্যয় করি। কিন্তু শেখার জন্য ইউটিউব খুব ভালো একটি ক্ষেত্র। ইউটিউবে বিভিন্ন চ্যানেল রয়েছে যেগুলো ইংরেজি শেখার ক্ষেত্রে অনেক সাহায্য করে। যেমন আমাদের দেশের ‘১০ মিনিট স্কুল’। এমন বিভিন্ন শিক্ষামূলক চ্যানেল রয়েছে যেগুলো নিয়মিত দেখতে পারো।

ইংরেজি শুধু একটি ভাষা। এটাকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আমরা যেমন কোনো কিছু না পারলে বারবার অনুশীলন করে দক্ষতা আনি, ইংরেজি ভাষাও সে রকম। তোমার ইচ্ছা থাকলে খুব সহজে তুমিও ইংরেজি শিখতে পারো। শুধু চেষ্টা চালিয়ে চাও আর মাথায় রাখো আমি দক্ষতা অর্জন করে তবেই থামব, তার আগে নয়। নিজের মাতৃভাষাকে নিজের দেশকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে গেলে ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই।

ছবি : সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

nineteen − 12 =