ঈদসাজে অপরূপা

করেছে Sabiha Zaman

বছর ঘুরে আসলো ঈদ। তবে এবারের ঈদ কিন্তু সবচাইতে আলাদা তার কারণ করোনা ভাইরাস। বিশ্বের এ  করোনা  পরিস্থিতিতে মন মরা থাকলে চলবে না। এপরিস্থিতিতে মনোবল সবচাইতে বড় শক্তি।  তাই ঘরের ভেতরেই হালকা সাজে ঈদ পালন করতে পারো এবার।

সূর্য তার অমলিন হাসি দিয়ে ঈদকে স্বাগত জানাবে। রোদের খোলায় খুনসুটি করবে রমণীর সাজ   কিন্তু মেঘলা   আকাশও যদি মশকরা করে, তাহলে বিপাকে পড়বে সময়। কারণ, সাতসকালে আয়নার সামনে বসে পড়া সময়গুলো যেন বিফলে না যায় সে জন্য সাজগোজের আগে হিসাব কষে নেওয়াটাই ভালো। তবে নতুনত্ব যেন বিরাজ করে চোখে, মুখে, চুলে। তাই বেশ ভেবে তোমাদের জন্য রূপ বিশেষজ্ঞরাও পরামর্শ দিলেন এই সংখ্যায়।  

সকালে সতেজ 

সময়টা যেহেতু গরমের, তাই রোদ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। যেহেতু বাইরে যাওয়ার পরিকল্পনা নেই তাই  কম মেকআপই ভালো, এমনটাই বলছিলেন হারমনি স্পা ও ক্লিওপেট্রার কর্ণধার ও রূপ বিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা।  ফ্রেশ লুকের জন্য মেকআপ ও চাইলে ছাদে গিয়ে রোদের মধ্য ছবি তুলতে কারণে সানব্লক অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে। পোশাকের ওপরই ঈদের সাজ সংশ্লিষ্ট। তাই পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে সাজটা যেন অন্যের রুচির সঙ্গে মিলে না যায়, সেদিকেও লক্ষ রাখতে হবে। তাই পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে কালারফুল শ্যাডো, ম্যাচিং, কন্ট্রাস্ট শ্যাডো ব্যবহার করা যেতে পারে। যাদের ঠোঁট অয়েলি, তারা নানা রকম ম্যাট লিপস্টিক বেছে নিতে পারে।

আর যাদের ঠোঁট ড্রাই, তাদের সেমি ম্যাট ব্যবহার করাই উত্তম। চোখের সাজে সকালে স্মোকি ভালো লাগবে না, তাই হালকা করে কাজল, সঙ্গে লাইনার ব্যবহার করা যেতে পারে। গালে খুব স্নিগ্ধ রং বেছে ব্লাশন দিতে পারো। চুলটা টুইস্ট করে বেঁধে কিংবা পনিটেল করলে মন্দ হবে না এই গরমের ঈদ উৎসবে। আবার বিভিন্ন ঢঙে চুলের খোঁপা বাঁধতে পারো। গয়না জড়োয়া না বাছাই ভালো কারণ সকালেই রোদের প্রখরতা বেশি থাকে। তাই ছিমছাম পোশাকে ছিমছাম সাজ ভালো লাগবে।

বিকেলে মোহনীয় 

ঈদের দিনের সাজ আকর্ষণ শুরু হয় বিকেল থেকেই। বিকেলের সাজ নিয়ে কথা হলো রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীনের সঙ্গে, ‘সাজের শুরুতেই ত্বক পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর টোনার ও ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে স্কিন টোনের সঙ্গে মিলিয়ে ফাউন্ডেশন দিয়ে পাউডার ভালোভাবে লাগিয়ে নিতে হবে। চোখ যেভাবেই সাজাও না কেন সূক্ষ ফিনিশিং হওয়া জরুরি। তোমার পছন্দ অনুযায়ী ব্যবহার করো লাইনার। বিভিন্ন রঙের আই পেনসিল ব্যবহার করতে পারো, তাতে নিজেকে অন্যদের চেয়ে আলাদা মনে হবে। বিকেলে ব্লাশন টোনটা একটু ব্রাইট করা যেতে পারে। লিপস্টিক একটু কালারফুল হতেই পারে।

ব্রাইট হলেও যেন তা আবার ডার্ক না হয়ে যায় সেদিকে খেয়াল রাখা দরকার।চোখে একটু ভারি কাজল বা আইলাইনার ব্যবহার করতে পারো। ভারি করে মাসকারা লাগালেও ভালো লাগবে। বিকেলে শাড়ি পরতে পারো। সঙ্গে ম্যাচিং গয়না পরলে খুব সিম্পল একটা লুক আসবে। চাইলে চুলে সুন্দর খোঁপা করতে পারো।

ঈদের আগের দিন পার্লারে গিয়ে চুলের গ্লো সেটিংটা ঠিক করে নিলেও ভালো। চেহারায় কোনো দাগ বা চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল থাকলে কনসিলার ব্যবহার করতে পারো। এতে দাগ ঢাকা পড়বে এবং মেকআপ ফ্ললেস দেখাবে। যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা অবশ্যই লুজ পাউডার দিয়ে ফাউন্ডেশন এবং কনসিলার সেট করে নেবে। এতে মেকআপ ফেটে যাবে না এবং লংলাস্টিং হবে। কন্টোর, হাইলাইটিং এবং ব্লাশ এর জন্য পাউডারি প্রোডাক্ট ব্যবহার করতে পারো। এতে মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী হবে।

রাতে গর্জিয়াস

রাতের সাজে সবাই চায় গর্জিয়াস লুক সামনে আসতে। রাতে গর্জিয়াস সাজলে মন্দ লাগে না। তাই পরামর্শ বিশেষজ্ঞদেরও। বললেন রূপ বিশেষজ্ঞ অবন্তি ফারজানা, ‘রাতে খুব সাধারণ সাজ মানাবে না। এ ক্ষেত্রে ব্লাশনটা একটু বাড়িয়ে দেওয়া যেতে পারে, চোখের কাজলটাকেও গাঢ় করলে ভালো লাগবে। ঈদের গর্জিয়াস সাজে শ্যাডো ব্যবহার করতে চাইলে চোখে বিশেষ কোনো রঙের শ্যাডো ব্যবহার করা যেতে পারে। সাজের পরিবর্তনের দিকে লক্ষ দিতে চাইলে চোখে কয়েক রকমের রঙের লেয়ার কাজল ব্যবহার করা যেতে পারে।

এটি তোমাকে অন্যদের থেকে ব্যতিক্রম করে রাখবে। এর পাশাপাশি চোখে মাসকারা, আইলাশ ব্যবহার করা যেতে পারে। বর্তমানে চোখের মেকআপ এর ক্ষেত্রে ‘কাট ক্রিস লুক’ বেশ জনপ্রিয়। যদি এটি কঠিন মনে হয়, তাহলে চিরাচরিত স্মোকি লুক ট্রাই করতে পারো।

তবে যেই লুকই ট্রাই করো না কেন খেয়াল করবে, আইশ্যাডোর প্রত্যেকটা রং যেন খুব ভালোভাবে ব্লেন্ড হয়। না হলে দেখতে বাজে লাগবে। গাঢ় রংগুলো চোখের আউটার কর্নারে দিয়ে এবং ফাইনালি একটি শিমারি শেড চোখের পাতায় লাগিয়ে খুব ভালোভাবে ব্লেন্ড করে একটি খুব সুন্দর ক্লাসি স্মোকি আই লুক তৈরি করতে পারো। সবশেষে ওয়াটারপ্রুফ আইলাইনার এবং মাসকারা দিয়ে আই মেকআপটি শেষ করো। যারা একটু ড্রামাটিক লুক চাও, তারা চোখের নিচে কাজলের পাশাপাশি বিভিন্ন শেড দিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে পারো।

চুলের সাজের ক্ষেত্রে রাতে হালকা করে খুলে রাখতে পারো। আবার চাইলে কিছু চুল সামনে নিয়ে টুইস্ট করেও আটকে রাখতে পারো। চুলের এমন সাজে নিজেকে একটু গর্জিয়াসই মনে হবে। মেকআপ এর একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্ট হচ্ছে লিপস্টিক। এই লিপস্টিক না দিলে পুরো মেকআপ লুকটাই ব্যর্থ! পছন্দ অনুযায়ী ডার্ক অথবা ন্যুড কালার বেছে নিতে পারো। ম্যাট ফিনিশড লিপস্টিক বেছে নেওয়াই সঠিক হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। আই মেকআপের ওপর নির্ভর করে লিপস্টিকের কালার বেছে নিতে পারো।

এবছরের ঈদ হোক ঘরে থেকে আর নিরাপদ থেকে অন্যকে সাহায্য করে। করোনা মোকাবেলায়  পরিবার আর নিজেকে নিরাপদ রাখো।  নিজের ঘরে সাজো নিজের মত করে। মনে রাখবে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় প্রয়োজন সচেতনতা আর সাহসিকতা। ঘরে থাকো নিরাপদ থাকো।

লেখা : সুরাইয়া নাজনীন

 

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

eighteen + 11 =