কাঁচা হলুদের ম্যাজিকে দূরে থাক ত্বকের সমস্যা

করেছে Sabiha Zaman

সাবিহা জামান: এখন আমরা ত্বকের সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন কেমিক্যালযুক্ত পণ্য ব্যবহার করলেও এগে এমন ছিলো না। তখন মানুষ তাদের ত্বকের সমাধান খুজতো প্রকৃতি থেকেই। তারা প্রাকৃতিক বিভিন্ন উপকরণ ব্যবহার করতো, যার মধ্য অন্যতম ছিলো কাঁচা হলুদ।
এই উপাদানটি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় ম্যাজিকের মতোই। ত্বকের দাগ, হাইপারপিগমেন্টেশন কমাতে হলুদের জুড়ি নেই। কীভাবে বিভিন্ন ফেসপ্যাক তৈরি করে কাঁচা হলুদ ব্যবহার করতে পারো তা নিয়েই আজকের রোদসীর লেখা।

এক
এক চা-চামচ হলুদগুঁড়ো অথবা কাঁচা হলুদবাটার সঙ্গে অ্যালোভেরার রস মিশিয়ে ক্ষতের দাগ অথবা পুড়ে যাওয়া ত্বকের উপর নিয়মিত লাগালে উপকার পাবে। হলুদ আর অ্যালোভেরা ত্বকের সমস্যায় দারুণ কাজ করে।

দুই
এক চা-চামচ হলুদগুঁড়ো অথবা বাটা, এক চা-চামচ চন্দনগুঁড়ো অথবা বাটা, সামান্য জলের সঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নাও। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে দাও পানি দিয়ে। ব্রণর সমস্যা কমবে যাবে।

তিন
এক টেবলচামচ করে হলুদগুঁড়ো ও লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে নাও এক চা-চামচ দই। মুখে-গলায় ১০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলো। ত্বকের দাগছোপ কমাতে ও স্কিন টোন ভাল রাখতে কাজে দেয় এই প্যাক।

চার
স্ক্রাবিং আর বডি পলিশিংয়ের জন্য এক চা-চামচ হলুদগুঁড়ো অথবা বাটার সঙ্গে এক চা-চামচ বেসন আর সামান্য পানি মিশিয়ে গোস্ল করার আগে সারা শরীরে নিতে পারো। এতে করে ত্বকের সব সমস্যার সহজ সমাধান মিলবে।

ছবি: সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

19 − three =