কেমন হবে ঈদে চুলের সাজ

করেছে Sabiha Zaman

বিভিন্ন উৎসবে নিজেকে পরিপাটি, ফিটফাট রাখাটা জরুরি। উৎসব আয়োজনের আমেজ আনতে একটু না সাজলে তো হয় না। পারিবারিক উৎসব থেকে ধর্মীয় উৎসব সব ক্ষেত্রেই নিজেকে রাখা চাই পরিপাটি। এ জন্যই সাজগোজ, চেষ্টা নিজেকে সবার থেকে একটু আলাদাভাবে আর সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা। সামনেই তো ঈদ, এ বছরে ঘোরাঘুরি হবে না। পুরো ঈদের আয়োজন করতে হবে ঘরেই। তাই নিজের ঘরে ঈদ করলেও উৎসবের আমাজে নিজেকে শামিল করতে একটু না সাজলে তো চলেই না। ঈদের দিনের সাজ নিয়ে কত পরিকল্পনা চলে। ঈদে চুলার সাজ নিয়ে লিখেছেন সাবিহা জামান।

যেকোনো সাজের পূর্ণতা আনে চুলের সাজ। খুব পরিপাটি সুন্দরভাবে সাজলে, কিন্তু চুল এলোমেলো তবে পুরো সাজ নষ্ট হয়ে যাবে। ঈদের চুলের সাজ কেমন হতে পারে, তা নিয়েই রোদসীর কিছু টিপস চলো জেনে নিই। সবচেয়ে সহজ চুলের সাজ নিয়েই আজকের লেখা, যাতে তোমরা সবাই সহজেই ঈদে চুলের সাজে নিজের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে পারো।

বাহারি খোলা চুল

শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, কুর্তি কিংবা টপস যা-ই পরো না কেন, খোলা চুলে বেশ ভালো মানিয়ে যায়। খোলা চুল হচ্ছে সবচেয়ে সহজ আর মানানসই সাজ, যা যেকোনো পোশাকের সঙ্গেই ভালো লাগে। চুল যদি অনেক বড় হয়, তাহলে আরও বেশি মোহনীয় লাগে। তবে চুল ছোট হলে নিরাশ হওয়ার কিছু নেই। কারণ, ছোট চুল বেশ ভালো লাগে খোলা থাকলে।
তোমার চুল যদি স্ট্রেইট বা সোজা হয়, তবে ঈদের দিন ভিন্নতা আনতে একটু কার্ল করতে পারো। আর যদি চুল কার্ল বা কোঁকড়া হয়, সে ক্ষেত্রে স্ট্রেইট করতে পারো। বাসার স্ট্রেইটনার দিয়ে সহজেই চুল সোজা করা যায়। আর বাসায় যদি কার্ল করার টুলস না থাকে, তবে স্ট্রেইটনার দিয়েও সহজে চুলে কার্ল ভাব আনা সম্ভব। ইউটিউব থেকে দেখে নিতে পারো কিছু টিউটোরিয়াল।

আর তোমার চুল যেমন আছে, তেমনই রাখতে চাইলে হালকা ব্লো ড্রাই করতে পারো। আসলে খোলা চুলের সৌন্দর্য অন্য রকম আবহ তৈরি করে সাজের। খোলা চুলে ফুল দিয়ে সাজে ভিন্নতা আনতে পারো।

স্টাইলে বেণি

চুলের খুব সহজ একটি সাজ হচ্ছে বেণি। শাড়ি কিংবা কামিজ যেটাই হোক, বেণির সঙ্গে বেশ মানিয়ে যায়। অতীতে ফ্রেঞ্চ বেণি, খেজুর বেণির চল যেমন ছিল, এখনো আছে। তবে তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে একটু অগোছালো করে হালকা করে বেণি। বেশ স্টাইলিশ লাগে বেণি করলে। বেণি কিন্তু কেবল এখন আমাদের উপমহাদেশ নয়, মানে এখন সারা পৃথিবীতে খুব জনপ্রিয় অগোছালো বেণি।

ঈদের দিন সকাল কিংবা বিকেলের সাজে চুল সাজাতে বেণি বেশ মানানসই। বিকেলের সাজের পূর্ণতা আনতেও বেণি অনেক মানানসই সাজ। সাধারণ বেণি না করে ঈদের দিন ফ্রেঞ্চ বেণি, খেজুর বেণির চল কিংবা একটু অগোছালো করে হালকা বেণি করতে পারো। কুর্তি, কামিজ কিংবা শাড়ি সবকিছুর সঙ্গেই বেশ ভালো লাগবে।

খোলা চুলের এক পাশে অল্প কিছু চুল নিয়ে অর্ধেক বেণি করে ক্লিপ দিয়ে আটকিয়ে নিলে অনেক বেশি স্টাইলিশ লাগবে। এমনকি খোঁপা করে কিছু চুল দিয়ে বেণি করে পুরো খোঁপার চারদিকে বেণি পেঁচিয়ে নিয়ে হেয়ার পিন ক্লিপ দিয়ে চুল সেট করতে পারো।

চটজলদি খোঁপা
আমাদের বাঙালি নারীদের চুলের সাজের একটি বড় অংশ জুড়ে আছে খোঁপা। শাড়ির সঙ্গে নজরকাড়া একটি খোঁপা, সঙ্গে সুবাসিত ফুল দিয়ে ঈদসাজের সবার থেকে আলাদা করবে তোমাকে। মূলত শাড়ির সঙ্গে খোঁপা করলে বেশ ভালো লাগে। সাধারণ খোঁপার সঙ্গে ফুল গুঁজে দিলে বেশ ভালো লাগে আর প্রশান্তি ভাব চলে আসে পুরো সাজের।

কুর্তি বা কামিজের সঙ্গে সাধারণ খোঁপা আর তার পাশ দিয়ে কিছু চুল কার্ল করে নিলে কিন্তু খুব স্টাইলিশ লাগবে তোমাকে। আর সঙ্গে এই গরমে কিছুটা আরাম পাবে। চুল খোঁপার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে একবার ভালোভাবে খোঁপা করা হয়ে গেলে এটা ম্যানেজ করা নিয়ে আর ভাবতে হয় না। যেহেতু ঈদ নানান কাজে ব্যস্ত থাকতে হবে, তাই চুল ম্যানেজ করার ঝামেলা থেকে রেহাই পেতে খোঁপাই সেরা।

তুমি চল যেভাবেই সাজাও না কেন, সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে তুমি কমফোর্টেবল কি না। যে সাজে তোমার ভালো লাগবে, তুমি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবে, সেভাবেই সাজো। কারণ, তখনই সৌন্দর্য আসে, যখন তুমি নিজে স্বাচ্ছন্দ্য থাকো। এমন কোনো সাজ দেওয়া ঠিক নয় যে তাই তুমি কমফোর্টেবল না। যে সাজ দাও যে পোশাক বেছে নাও নিজের ভালো লাগা আগে।

ছবি : সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

one × three =