ক্যারিয়ার যখন স্পোর্টস

করেছে Sabiha Zaman

প্রতিটি মানুষের ভালো লাগা, ইচ্ছগুলো আলাদা। আর এ ভালো লাগার কাজ করে পেশা নির্বাচনের ক্ষেত্রেও। কেউ হতে চায় ডাক্তার, কেউবা ব্যবসায়ী আর কেউ শিক্ষক, নয়তো ইঞ্জিনিয়ার। বর্তমান সময়ে ছকে বাঁধা মনোভাব পরিবর্তন করে অনেকেই হতে চায় ভিন্ন কিছু যেমন, খেলোয়াড়, ডিজিটাল মার্কেটার, সাংবাদিক, ইমেন্ট প্ল্যানার ইত্যাদি পেশা।

অনেকের কাছেই খেলাধুলা স্বাস্থ্যকর বিনোদন বা সময় কাটানো নয়। বরং পেশা হিসেবে বেছে নিতে চায় স্পোর্টস বা খেলাকে। বর্তমান সময়ে স্পোর্টসে রয়েছে সম্মানজনক ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ। আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে স্পোর্টস শুধু শখ নয়, বরং সময়ের সঙ্গে স্পোর্টস এখন ওদের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্যারিয়ার। যদি তোমার মনে সুপ্ত ইচ্ছে থাকে ক্যারিয়ার গড়বে স্পোর্টস ওয়ার্ল্ডে, তবে বেশি না ভেবে নিজেকে তৈরি করো।

খেলাকে ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নাও। তবে এটি প্রচুর খ্যাতি এবং অর্থও দেয় আর বিশ্বভ্রমণের সুযোগ তো রয়েছেই। এ ছাড়া বিভিন্ন পণ্যের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়ে আয় করার সুযোগ রয়েছে অনেক। আমাদের দেশে সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর বা পণ্যদূত হিসেবে তুমুল জনপ্রিয়।

 

বিভিন্ন খেলাকে তুমি ক্রীড়া ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারো যেমন : ক্রিকেট, ব্যাডমিন্টন, ভলিবল, ফুটবল, বাস্কেটবল, জিমন্যাস্টিকস, হকি, টেবিল টেনিস, রেসলিং, তিরন্দাজ, সাইক্লিং ইত্যাদি। ক্যারিয়ার বাছাই করতে গেলে কিছু বিষয় তোমার জানতে হবে, সেসব জানাব এখন।

বিকেএসপি

ঢাকার অদূরে সাভারে অবস্থিত বাংলাদেশের একমাত্র ক্রীড়াশিক্ষা কেন্দ্র, যেটি সংক্ষেপে বিকেএসপি নামে পরিচিত। এখানে ১৭টি ক্রীড়া বিষয়ে পড়াশোনার সুযোগ রয়েছে। চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, সিলেট ও দিনাজপুরে রয়েছে বিকেএসপির আঞ্চলিক কেন্দ্র। বিকেএসপি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৬ সালে। বিকেএসপির মূল শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয় উ”চমাধ্যমিক পর্যন্ত। তবে স্নাতক ও বিভিন্ন বিষয়ে ডিপ্লোমা ডিগ্রিতেও কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়। বেশির ভাগ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয় সপ্তম শ্রেণিতে। বিশেষ ক্রীড়া যোগ্যতাসম্পন্ন খেলোয়াড়দের জন্য বয়স ও উচ্চতা শিথিল করা হয়।

 

পেশা হিসেবে ক্রিকেট

সময়ের ব্যবধানে ক্রিকেট শখ থেকে পেশায় রূপ নিয়েছে। কারণ, এতে রয়েছে প্রচুর খ্যাতি আর অর্থ উপার্জনের সুযোগ। লাইফস্টাইল মিনিয়ার তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালে ধনী ক্রিকেটারদের তালিকার শীর্ষে রয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি, যার আয় ১১৫ মিলিয়ন ইউএস ডলার। তালিকার দ্বিতীয় বিরাট কোহলির আয় ৮০ মিলিয়ন ইউএস ডলার।

বাংলাদেশে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারদের  বেতনকাঠামোর চারটি শ্রেণিতে ভাগ করা হয়েছে। ’এ প্লাস’ শ্রেণির ক্রিকেটারদের মাসিক বেতন ৪ লাখ টাকা করে,  ’এ’ শ্রেণিতে ৩ লাখ, ’বি’ শ্রেণির ক্রিকেটাররা ২ লাখ টাকা করে পাবেন। রুকি শ্রেণির ক্রিকেটারদের ১ লাখ টাকা করে। এ ছাড়া বিভিন্ন ক্লাবের খেলোয়াড়দের আয়ও কম না।

 

’এ প্লাস’ ক্যাটাগরিতে আছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ক্রিকেটার হতে চাইলে এখন থেকেই অনুসরণ করতে হবে। বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে খেলা শুরু করতে পারো। এরপর ধীরে ধীরে কাজের সুযোগ বাড়তে থাকবে। শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্র, আবাহনীসহ বিভিন্ন ক্লাব রয়েছে। এ ছাড়া তোমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দলে সঙ্গে যুক্ত হয়েও খেলা শুরু করতে পারো।

ফুটবলার হতে চাইলে :

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ফুটবল। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে জনপ্রিয় খেলোয়ারদের মধ্যে রয়েছেন লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, নেইমার, মোহামেদ সালাহ প্রমুখ। আমাদের দেশে জাতীয় দলের পাশাপাশি নারীরাও অনেক ভালো ফুটবল খেলে বিজয়ী হয়ে দেশে ফিরছেন।

 

ভালো খেলোয়াড় হতে হলে তোমাকে আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। নিয়মিত করতে হবে অনুশীলন। পৃথিবীর নামীদামি খেলোয়াড়দের বিভিন্ন আক্রমণাত্মক শুট এবং তাদের খেলার কলাকৌশল ফলো করতে পারো। তুমি চাইলে বিকেএসপিতে ভর্তি হতে পারো। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) বিভিন্ন সময় ফুটবল প্রশিক্ষণ, ক্যাম্প এবং ট্যালেন্ট হান্টের আয়োজন করে থাকে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে ও স্থানীয় ক্লাব এবং ব্যক্তি উদ্যোগে ফুটবল প্রশিক্ষণ, ক্যাম্প এবং প্র্যাকটিসের ব্যবস্থা রয়েছে।

বিশ্বের সব দেশেই খেলাধুলার প্রতি বিশেষ নজর দিচ্ছে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের সাফল্য ছিল অনেক বেশি। এবার নেপালে ১৩তম গেমসে সব ছাপিয়ে রেকর্ড ১৯টি সোনা পেয়েছে বাংলাদেশ আর সঙ্গে রেকর্ডসংখ্যক ৩৩টি রুপা ও ৯০টি ব্রোঞ্জ।

খেলোয়াড়দের সামাজিক মর্যাদাও অনেক বেশি। তাদের সবাই সম্মান করে তাদের অর্জনের জন্য। কারণ, তারা দেশের জন্য বয়ে আনেন সম্মান।

জনপ্রিয় মার্কিন ম্যাগাজিন ফোর্বস বিশ্বের ১০০ ধনী খেলোয়াড়ের তালিকা প্রকাশ করে। তালিকার শীর্ষ ৫ খেলোয়াড়ের মধ্যে পঞ্চম স্থানে রয়েছেন টেনিস খেলোয়াড় রজার ফেদেরার। সুইস এই তারকা ক্যারিয়ার-জীবনে ইতিমধ্যে ১২৪ মিলিয়ন ডলার প্রাইজ মানিই অর্জন করে ফেলেছেন। চতুর্থ স্থানে জায়গা করে নিয়েছেন বক্সিং তারকা ক্যানেলো আলভারেজ।

 

২০১৮ সালে তার আয় দাঁড়িয়েছে ৯৪ মিলিয়ন ডলার। সাবেক বার্সা তারকা নেইমার ২০১৮ সালে ১০৫ মিলিয়ন ডলার আয় করে আছেন তৃতীয় স্থানে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার ফলোয়ারের সংখ্যা ৪০০ মিলিয়নের বেশি। শীর্ষ স্থানটি দখল করে আছেন বিশ্বসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসি, যার আয় ছিল ১২৭ মিলিয়ন ডলার। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বেতনভুক্ত ও অর্থ উপার্জনকারী খেলোয়াড়।

তুমি যে পেশাতেই জীবন গড়তে চাও না কেন, তোমার ধৈর্য আর আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখতেই হবে। আর সঙ্গে হতে হবে পরিশ্রমী। তাহলে যেকোনো পেশাতেই সফলতার হাসি হাসবে তুমি।

লেখা : রোদসী ডেস্ক

 

 

0

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

one × 5 =