টিকা নেবে কখন

করেছে Sabiha Zaman

ডা. লুনা পারভীন:সরকারি টিকা সম্পর্কে আমাদের সবারই কমবেশি ধারণা আছে। এই টিকাগুলো অবশ্যই এক বছরের মধ্যে শুরু করা উচিত এবং দুই বছরের আগেই শেষ করতে হবে।
এ ছাড়া বেসরকারিভাবেও বিভিন্ন ক্লিনিক, বেসরকারি হাসপাতাল ও ডাক্তারদের প্রাইভেট চেম্বারে আরও কিছু টিকা দেওয়া হয়। যেমন :

হেপাটাইটিস এ : দুই ডোজ। প্রথম ডোজ যেকোনো দিন এবং দ্বিতীয় ডোজ প্রথমটার ছয় মাস পর।
চিকেন পক্স : ১২ মাস থেকে ১২ বছরে একটা ডোজ এবং এরপর থেকে দুটি ডোজ এক মাসের ব্যবধানে দিতে হয়।
টাইফয়েড : দুই বছর বয়স থেকে দেওয়া শুরু এবং প্রতি তিন বছর পরপর আবার দিতে হয়।
মেমিনগোকক্কাস : দুই বছর বয়স থেকে শুরু করে প্রতি তিন বছর পরপর দিতে হয়।

ইনফ্লুয়েঞ্জা : যে কোনো দিন শুরু করে দ্বিতীয় ডোজ এক মাস পর আর এরপর বছর বছর দিতে হয়।
জলাতঙ্ক : রোগাক্রান্ত প্রাণী কামড় দিলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব টিকা শুরু করতে হয়। প্রথম ডোজের তিন দিন পর, সাত দিন পর, ১৪ দিন পর এবং ২৮ দিন পর মোট পাঁচটি টিকা দিতে হয়।
রোটা ভাইরাস : ছয় মাসের নিচে দেওয়া হয়। প্রথম ডোজ ৬-১২ সপ্তাহের মধ্য এবং দ্বিতীয় ডোজ ১০ সপ্তাহ থেকে ৪ মাসের মধ্যে দিতে হবে।

বড় মেয়েদের জন্য সরকারিভাবে টিটি টিকা ৫ ডোজ এবং টিটির প্রথম ডোজের সঙ্গে এক ডোজ এমআর ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। এ ছাড়া আরও যেটা দেওয়া হয় বেসরকারিভাবে, এইচপিভি (হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস) টিকা : ১২ থেকে ২৬ বছর বয়সী মেয়েদের তিনটি ডোজ দেওয়া হয় এক মাস ও ছয় মাস বিরতিতে। অনেক সময় ৯ বছর বয়স থেকেও শুরু করা হয়।
রোগ প্রতিরোধের জন্য টিকা দেওয়া জরুরি। টিকা দিলে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ওই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। তবে একদম হবেই না, তা নিশ্চিত করে বলা যাবে না। তবে টিকা দিয়ে দুশ্চিন্তামুক্ত থাকাই বুদ্ধিমানের কাজ।

ডা. লুনা পারভীন
শিশু বিশেষজ্ঞ
ঢাকা শিশু হাসপাতাল
শ্যামলী।

ছবি: সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

five × 2 =