নবদম্পতিদের জন্য শুভ কামনা

করেছে Rodoshee

সময় বদলেছে। বদল হয়েছে বিয়ে নিয়ে সমাজের প্রচলিত ধ্যান-ধারণার। স্বামীর মুখটি ভালোভাবে দেখার আগেই বিধবা হবার কাল আমরা অনেক আগেই শেষ করেছি। এরপর বহুবিয়ে, বাল্যবিয়ে এসব নানা প্রতিকূলতা আমাদের সামনে এসেছে। আমরা এর সবকিছুই সামলে নিয়েছি। তবুও বলবো, বিয়ে নিয়ে আমাদের সমাজ ভাবনা অনেকটা পশ্চাৎমুখী। এখনো নারী পায়নি তার পছন্দের মানুষকে বিয়ে করার পূর্ণ স্বাধীনতা। বাবা-ভাই কিংবা পরিবারের পছন্দ করে দেয়া মানুষটির সাথেই কাটিয়ে দিতে হয় পুরো একটা জীবন! এরপরও ঝামেলা থাকে। কনে চাকরি করে কেন? রাত-বিরাতে বাড়ি ফেরে কেন? বসের সাথে এতো খাতির কিসের? এরকম বিব্রতকর নানা প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় প্রতিনিয়ত। আবার সংসারের ‘চাপ’ সামলাতে কতো নারীকে ছাড়তে হয়েছে সখের চাকরিটা পর্যন্ত! এসব খবর রাখে কে! মূলত বিয়ের সব নিয়ম-কানুনের মধ্যে প্রচ্ছন্নভাবে লুকিয়ে আছে পুরুষ প্রাধান্য দেবার রীতি।
বছর শেষে আবার রোদসী’র বিয়ে বের হতে যাচ্ছে। বিশেষ এ সংখ্যাতে আমরা তুলে আনার চেষ্টা করেছি বিয়ে নিয়ে নারী জীবনের অভিজ্ঞতাগুলোকে। সমাজ-সংসারের চারপাশ আমাদের ভাবনাকে প্রভাবিত করেছে এবারের সংখার কাজে। আশা করি তোমাদের ভালো লাগবে।
এ বছর যারা নতুন জীবন শুরু করতে যাচ্ছো, তাদের প্রত্যেকের জন্য শুভকামনা।

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

9 − two =