নীড় ছোট ক্ষতি নেই…

করেছে Suraiya Naznin

রোদসী ডেস্ক

কমফর্ট, স্টাইল, ব্যালেন্স আর ফাংশনালিটি, এই চারটে স্তম্ভই তোমার অস্ত্র হতে পারে, ঘর সাজাবার ক্ষেত্রে। তবে নিজেদের প্রয়োজনীয়তা মাথায় রাখবে। হাজারটা জিনিস লাগলেও, এমনভাবে প্ল্যান করতে হবে যাতে একটার মধ্যেই অনেককিছু ধরানো যায়। সহজ ভাষায় মাল্টিপারপাস স্টোরেজ।

এই বাড়িতে মূলত একটাই বেডরুম। কিন্তু ছবি দেখে তা বোঝার উপায় নেই। কারণ অবশ্যই সুষ্ঠু প্ল্যানিং ও নিখুঁত এগজ়িকিউশন। ঢুকেই একফালি জায়গা। একদিকের দেওয়াল জুড়ে বানানো হয়েছে বুক ক্যাবিনেট। নীচে আবার স্টোরেজের জায়গা। প্র্যাগম্যাটিক ভাবনা নিঃসন্দেহে। আর একদিকের দেওয়ালে ঠেসান দেওয়া ডিভান। বসা তো যায়ই, আবার একজন আরাম করে শুয়ে যেতে পারে। বন্ধুবান্ধব এলে কিন্তু এতে দারুণ সুবিধে হয়। আর আছে অ্যানিমাল প্রিন্টেড কাঠের সোফা। ইন্টারেস্টিং অ্যাডিশন। ফ্লোর স্পেস বাঁচাতে দেওয়ালে বুক শেল্ফ। আপনার লিভিং স্পেসেও ডিবাবা বা সোফা-কাম বেড রাখতে পারেন। এতে বাড়তি লোক এলেও অসুবিধে হবে না। যতটা সম্ভব ফ্লোর স্পেস খালি রাখুন। এতে ছোট জায়গাও বড় দেখায়। ড্রয়িং এরিয়া পেরিয়ে লম্বাটে প্যাসেজ। কাঠের সিলিং, বেশ অন্যরকম একটা ফিল দিয়েছে। দেওয়ালে বড় আয়না, এতেও জায়গা বড় দেখায়। প্যাসেজেই ছোট্ট একটা রান্নাঘর আর বাথরুম। বাথরুম আর রান্নাঘরেও করতে পারো স্টোরেজের ব্যবস্থা।

 

একরঙের দেওয়ালের বদলে খাটের পিছনে করা হয়েছে ফিচার ওয়াল। একদিকে কাচের বেঁটে আলমারিতে রোজকার জিনিস রাখা। অন্যদিকে ড্রেসিং টেবল কাম ক্যাবিনেট। টিভির নীচেও স্টোরেজেও ব্যবস্থা। জায়গা নেয়নি বেশি, অথচ দেখতে কি দারুণ! সঙ্গে ফাংশনালও বটে।

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

3 × three =