পিঁপড়া তাড়ানোর ঘরোয়া উপায়

করেছে Shaila Hasan

শায়লা জাহানঃ

 

চিনির বয়াম অথবা ঢেকে রাখা খাবারে পিঁপড়ার অনাকাঙ্ক্ষিত উপস্থিতির সম্মুখীন কেউ হয়নি, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবেনা। এত ছোট এক প্রানী, কিন্তু যন্ত্রণায় জীবন অতিষ্ঠ করে দিতে যথেষ্ঠ। আজকাল বাজারে পিঁপড়া তাড়ানোর অনেক ঔষধ পাওয়া যায়। তার ভেতর অনেক গুলোই তেমন কার্যকর হয়না, আবার কেমিক্যালের কারনে অনেকেই বাসায় তা ব্যবহার করার জন্য সেফ মনে করেনা। তাই ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করে কিভাবে এই সমস্যার থেকে পরিত্রান পাওয়া যায় তার কিছু টিপস এখানে দেয়া হল।

চক

পিঁপড়া থেকে মুক্তি পাওয়ার অন্যতম ঘরোয়া উপায় হল চক ব্যব্জহার করা। চকের মধ্যে আছে ক্যালসিয়াম কার্বনেট, যা পিঁপড়াকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। এর চলাচল যেখানে সবচেয়ে বেশি হয় সেখানে চক গুঁড়ো করে ছিটিয়ে দেয়া যায় অথবা চকের একটি লাইন এঁকে দেয়া যেতে পারে।

লেবু

একটি লেবু ছেঁকে নাও অথবা লেবুর খোসা এমন জায়গায় রাখো যেখান থেকে পিঁপড়া প্রবেশ করে। ঘর মোছার জন্য যে পানি ব্যবহার করা হবে সেখানে কিছু লেবুর রস মিশিয়ে নেয়া যেতে পারে। পিঁপড়া লেবুর রসের গন্ধ পছন্দ করেনা তাই তারা দূরে থাকবে। টক এবং তিতা যেকোন কিছু পিঁপড়াকে দূরে রাখতে পারে, কিন্তু যেকোন চিনিই পিঁপড়ার সবচেয়ে ভালো বন্ধু। তাই নিশ্চিত করতে হবে যে, এমন কিছু মিষ্টি জিনিস ধারেকাছে রাখা যাবেনা যেটাতে এরা আকৃষ্ট হতে পারে। সাধারণত রান্নাঘরের স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশেই এদের বেশি দেখতে পাওয়া যায়। তাই রান্নাঘরের স্ল্যাব পরিষ্কার রাখতে হবে এবং তাতে কিছু লেবুর খোসা ছিটিয়ে রাখলে ভালো হবে।

গোলমরিচ

পিঁপড়ারা চিনি যত পছন্দ করে, মরিচ ঠিক ততটাই ঘৃণা করে। যে জায়গা থেকে পিঁপড়ারা ঘরে প্রবেশ করে সেখানে গোলমরিচের গুঁড়া কিছু ছিটিয়ে দিতে হবে। এছাড়াও গোলমরিচ গুঁড়া এবং পানি দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে তা স্প্রে করেও দেয়া যেতে পারে। এটি পিঁপড়াদের মারবেনা কিন্তু তা বাসায় ফিরে আসতে বাধা দেবে।

সাদা ভিনেগার

পিঁপড়া সাদা ভিনেগারের গন্ধও সহ্য করতে পারেনা। সমান পরিমানে পানি এবং ভিনেগার দিয়ে একটি দ্রবণ প্রস্তুত করে সংরক্ষণ করে রাখতে হবে এবং জায়গা মত ছিটিয়ে দিতে হবে। এটা নো-এন্টারিং জোনে প্রবেশ করা থেকে দূরে রাখে। মিশ্রণটি জানালার সিল, দরজা এবং অন্যান্য জায়গার চারপাশে স্প্রে করো যেখানে সাধারণত পিঁপড়া আসার সম্ভাবনা থাকে।

দারুচিনি

বাড়ির প্রবেশপথে এবং যে জায়গা থেকে পিঁপড়া প্রবেশ করতে পারে বলে মনে করা হয় সেখানে দারুচিনি ও লবঙ্গ রাখো। ঘরকে ফ্রেশ ভাব রাখতে এটি একটি ভাল পদ্ধতি। দারুচিনি দারুন একটি ডিআইওয়াই যা পিঁপড়া নিয়ন্ত্রণে কার্যকর। এছাড়াও এটি প্রাকৃতিক প্রতিরোধক হিসেবেও কাজ করে। আরও কার্যকরী ফলাফলের জন্য দারুচিনি গুঁড়োতে কিছু প্রয়োজনীয় তেল যোগ করতে পারো।

পেপারমিন্ট

এটিও পোকামাকড় প্রতিরোধক হিসেবে ভাল কাজ করে। পেপারমিন্টে একটি শক্তিশালী সুগন্ধি রয়েছে যা পিঁপড়াদের দ্বারা সহ্য করা যায়না। ১০ ফোঁটা পেপারমিন্ট এসেনশিয়াল অয়েল এবং এক কাপ পানির মিশ্রণ তৈরি করে সেখানে ছিটিয়ে দিতে হবে। এটি দিনে দুবার পুনরাবৃত্তি করো। এই তরল মিশ্রণের পরিবর্তে শুকনো পেপারমিন্ট ছিটিয়ে দেয়া যেতে পারে।

-ছবি সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

12 − two =