ফুড ম্যানার

করেছে Sabiha Zaman

খাবার টেবিলেরও কিছু নিয়মকানুন আছে, জানো নিশ্চয়ই। তবে মানি কি? ভয়ানক কেতাদুরস্ত হওয়ার দরকার নেই, কিন্তু মোড়ের মাথার চায়ের দোকান মার্কা অভ্যাসগুলো তো ছাড়তে হবে। খাওয়ার টেবিলে পা নাচানো, গোল্লা পাকানো ন্যাপকিন লোফালুফি, এক মুখ বিস্কুট নিয়ে চায়ের কাপে চোঁ করে এক চুমুুক খাওয়ার ঠিকঠাক আদবকায়দা আমরা কজন জানি?

 এক মুখ বিস্কুট নিয়ে চায়ের কাপে সুড়ুৎ করে এক চুমুক খুব খারাপ অভ্যাস। যতক্ষণ না মুখের খাবার শেষ হয়, অপেক্ষা করো। তার পরেই না হয় চায়ের কাপে চুমুকটা দাও।
 বাচ্চাদের নিয়ে বাইরে খেতে বেরোলে অনেক সময় তাদের দিকে আলাদাভাবে নজর দেওয়া যায় না। কিন্তু খেয়াল রাখো হাতে কোনো খেলনা বা সঙ্গে কোনো পোষ্য নিয়ে সে যেন খাওয়ার টেবিলে না বসে।


 তুমি যখন খাবার পরিবেশন করছ, তখন কোনো খাবার চেখে দেখার প্রয়োজন হতেই পারে। সে ক্ষেত্রে আগে অতিথিদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে নাও। তারপর একটা ছোট চামচে অল্প পরিমাণ খাবার নাও। অন্য হাতে একটি প্লেট বা ন্যাপকিন চামচের তলায় ধরে মুখে তোলো। এক চামচ খাবার মুখে পুরে স্বাদ পরীক্ষার কোনো প্রয়োজন নেই।
 খাওয়ার টেবিলে বসে অপেক্ষা করতে হলে হাত দুটো কোলের ওপর রাখো। আঙুল নিয়ে খেলা, প্লেটের ওপর দাগ কাটা, হাঁটু নাচানো, চুল নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি একদম নয়।
 খাওয়ার সময় আমরা সাধারণত ডান হাতে ছুরি ধরি, আর বাঁ হাতে থাকে কাঁটাচামচ। এ ক্ষেত্রে কাঁটাচামচের তীক্ষ্ণ দিকটি কখনো উঁচু করে ধরবেন না। উল্টো করে প্লেটের ওপর রাখো। কথা বলার সময় বা মুখে খাবারভর্তি থাকলে কাঁটাচামচ, ছুরি প্লেটের ওপর নামিয়ে রেখে দাও।


 ডেজার্ট খাওয়ার সময় চামচ আর কাঁটাচামচ দুই-ই ব্যবহারের অভ্যাস করো। ধার থেকে একটা ছোট টুকরো কেটে নাও। বাঁ হাতের কাঁটা দিয়ে টুকরোটিকে ঠেলে চামচে তুলে দাও। এবার মুখে পুরে দাও।
 রেস্তোরাঁতে খেতে গিয়ে স্যুপের মধ্যে মাছি, ফ্রায়েড রাইসে লম্বা একটা চুল অথবা সালাদের লেটুসপাতার মধ্যে পোকা আবিষ্কার করাটা কোনো আশ্চর্য ঘটনা নয়। এ রকম হলে ওয়েটারকে ডেকে সেটা পাল্টে আনতে বলো। চিৎকার করে, গালমন্দ করে একটা অস্বস্তিকর পরিবেশ তৈরি করাটা কিন্তু মোটেই ভদ্রজনোচিত নয়।
 ডিনার টেবিলে যদি কোনো খাবার পরিবেশন করতে চাও, তাহলে আগে অন্যদের প্লেটে খাবারটা দিয়ে তবে নিজের প্লেটে নাও। পানীয়র ক্ষেত্রেও একই জিনিস প্রযোজ্য। যদি নিজের পছন্দমতো কোনো খাবার অর্ডার দাও, তাহলেও অন্যদের জিজ্ঞেস করে নেবে তারা চেখে দেখতে ইচ্ছুক কি না। এরপর খাওয়া শুরু করবে।


 চামচ দিয়ে স্যুপ খাওয়ার সময় পুরো চামচটাই মুখে ঢুকিয়ে দেবে না। মুখের সামনে চামচভর্তি স্যুপ এনে চামচের পাশ থেকে স্যুপ খেতে থাকো।
 খাওয়ার টেবিলে বসার পর ন্যাপকিন নিয়ে কোলের ওপর বিছিয়ে দাও। ন্যাপকিনের ভাঁজ খোলার সময় ঝাঁকাবে না। খাওয়া শেষ হওয়া পর্যন্ত ন্যাপকিন তোমার কোলেই থাকবে। কখনো এটি দিয়ে চামচ, কাঁটা বা ছুরি পরিষ্কার করবে না বা নিজের মুখ মুছবে না। কোনো কারণে টেবিল ছেড়ে ওঠার দরকার হলে আলতো করে একে ভাঁজ করে প্লেটের পাশে রেখে দাও। খাওয়া শেষ হলে অর্ধেক ভাঁজ করে তোমার বাঁ দিকে রেখে ওঠো। ন্যাপকিন কখনো কুঁচকে, কোনো কিছুর তলায় গুঁজে রাখবে না।

 

লেখা : রোদসী ডেস্ক
ছবি : ইন্টারনেট

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

eighteen − 4 =