ফ্রিজের লিকেজ সমস্যা ও সমধান

করেছে Shaila Hasan

শায়লা জাহান

 

রেফ্রিজারেটর বা ফ্রিজ এমন একটি নিত্যব্যবহার্‍্য পন্য, যা প্রায় প্রতিটি ঘরে ঘরেই দৃশ্যমান। শাকসবজি থেকে শুরু করে মাছ, মাংশ সবকিছু সংরক্ষনের জন্য খুবই দরকারী একটি জিনিস। কিন্তু এই ইলেকট্রনিকস যন্ত্রের যখন সমস্যা দেখা দেয় সাথে আমাদের দূর্ভোগও নেমে আসে। অনেক সমস্যার মধ্যে ফ্রিজ থেকে পানি লিক হওয়া এক ধরনের সমস্যা। এটা কেন হয় এবং তা ফিক্স করার ওয়ে নিয়ে আজকের আয়োজন।

ফ্রিজ থেকে পানি লিক হওয়া একটি সাধারন এবং বিরক্তিকর সমস্যা। এর দরুন ফ্রিজ তার কাজ ভালোভাবে সম্পাদন করতে পারেনা। এতে খাবার নষ্ট হয়ে যেতে পারে, ফ্রিজের নীচের অংশ এবং পৃথক তাকগুলোকে অন্ধকার করে তোলে এবং এটি স্বাস্থ্যবিধির জন্য ভালো নয়। এক্ষেত্রে রেফ্রিজারেশন বিশেষজ্ঞরা কিছু পরামর্শ দিয়েছেন কেন ফ্রিজ থেকে পানি পড়ে এবং কীভাবে এটি দ্রুত ঠিক করা যায়। সুতরাং, ফ্রিজ অরগানাইজ করার সময় যদি দেখে থাকো যে, এর নিচের দিক থেকে পানি পড়ছে বা এর নিচে পুডিং হচ্ছে, তবে এর কারনগুলো এবং সহজ সমাধানগুলো ধাপে ধাপে দেয়া হল।

ডিফ্রোস্ট ড্রেন অবরুদ্ধ

একটি জমাট বাঁধা ডিফ্রোস্ট ড্রেন ফ্রিজ থেকে পানি বের হওয়ার সম্ভাব্য কারন। এটি সম্ভবত খাবারের উচ্ছিষ্টাংশ দ্বারা অবরুদ্ধ, যা পরে পানি পরে, বরফে পরিনত হয়। এটি ফ্রিজের ঘনীভবন নিষ্কাশন বন্ধ করে দেয়। পরিবর্তে, এটি ফ্রিজের নিচে বা তাকগুলোতে পুল সৃষ্টি করে সঞ্চিত খাবারকে ভিজিয়ে নষ্ট করে দেয়।

যন্ত্রের ভেতর পানি তৈরি হওয়া রোধ করতে, ঘন ঘন ড্রেনেজ সিস্টেমের হোল পরিষ্কার করতে হবে। ভালো ফলাফলের জন্য নরম স্ট্র বা পাইপ ক্লিনার দিয়ে পরিষ্কার করা যেতে পারে। যদি এতে কাজ না করে, তবে গরম পানি দিয়ে ফ্রিজ ড্রেন ফ্ল্যাশ করার চেষ্টা করতে পারো। এতেও ব্যর্থ হলে, ডিফ্রোস্ট ড্রেন হোসটি খুঁজে বের করতে হবে এবং এর রাবার চেক ভালভটি পরিষ্কার করতে হবে, যেখানে ব্লকেজ হতে পারে।

পানি সরবরাহ লাইন বন্ধ

যদি ফ্রিজের বরফ প্রস্তুতকারক সঠিকভাবে কাজ না করে তবে সম্ভবত পানি সরবরাহের লাইনটি ব্লক হয়ে গেছে। পানি সরবরাহের লাইন হল যা ফ্রিজের পানীয়ের ডিসপেনসারে ঠান্ডা পানি এবং বরফ উভয়ই সরবরাহ করে। যদি এটি আটকে যায় বা ছিঁড়ে যায় তে এটির দ্রুত সমাধানের প্রয়োজন হবে।

একটি হিমায়িত পানি সরবরাহ লাইন পরিষ্কার করতে, প্রথমে ফ্রিজটি আনপ্লাগ করতে হবে এবং তারপরে পরীক্ষা করে দেখতে হবে যে, শাট-অফ ভালভটি কোন লিক ছাড়াই বন্ধ রয়েছে কিনা। এই ভালভ সাধারনত সিঙ্কের নীচে বা ফ্রিজের পিছনে অবস্থিত হতে পারে। প্রায়শই, এটি বরফ বাধার জন্য দায়ী হবে, তাই ফ্রিজটি ডিফ্রোস্ট হওয়ার সময় দুই ঘন্টা বন্ধ রাখতে হবে। সরবরাহ লাইন ছিঁড়ে গেলে সেক্ষেত্রে , একটি নতুন দিয়ে প্রতিস্থাপন এবং পুনরায় ইনস্টল করা সহজ।

ফ্রিজ অসমতলভাবে স্থাপন

রেফ্রিজারেটরগুলো সাধারনত সামনের প্রান্তটি সামান্য উঁচু করে ইনস্টল করা হয়। এটি কুল্যান্টকে প্রবাহিত হতে দেয়, যার অর্থ ঘনিভবন তৈরি হয়না এবং পরবর্তীতে ফ্রিজের নিচে পুডল তৈরি হয়। যাইহোক, যদি ফ্রিজটি বন্ধ থাকে, বিশেষ করে যদি এটি সামনের দিকে ঝুঁকে থাকে , তাহলে সম্ভবত ঘনীভবন তৈরি হচ্ছে এবং এই কারনে ফ্রিজ থেকে পানি বের হচ্ছে।

এমতাবস্থায়, ফ্রিজটি ভালো করে চেক করে দেখতে হবে যে, ফ্রিজটি একটি সমতল পৃষ্ঠে রয়েছে এবং তা কোনভাবেই ভারসম্যহীন নয়। যদি এমন হয়, তাহলে ফ্রিজের দরজা সঠিকভাবে নাও বন্ধ হতে পারে এবং ঘনীভূত পানি ড্রেনেজ গর্ত থেকে নামছে না, তাই ফ্রিজের পা গুলো সঠিকভাবে সামঞ্জস্য করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে।

ফ্রিজের দরজা খোলা থাকা বা এর ত্রুটিপূর্ন সিল

যদি ফ্রিজ থেকে পানি পড়ে এবং যথেষ্ট ঠান্ডা মনে না হয়, তাহলে বরফ জমে থাকার কারনে দরজাটি ভালোভাবে বন্ধ হচ্ছেনা। এই অবস্থায় ফ্রিজ থেকে সমস্ত আইটেম সরাতে হবে এবং ডিফ্রোস্ট করার সময় দিতে হবে। পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে ফ্রিজ যতটা সম্ভব দক্ষতার সাথে চলছে কিনা  তা নিশ্চিত করার জন্য এই কাজটি প্রতি চয় মাস অন্তর করতে হবে।

অনেক সময় ফ্রিজের দরজার সিল নষ্ট হয়ে গেলে দরজা ভালোভাবে বন্ধ হয়না। এই ক্ষেত্রে সম্ভব হলে কিছু সাবান পানি দিয়ে জায়গাটি মুছে নেয়া যেতে পারে। আর যদি তা পরিষ্কারের অযোগ্য হয় এবং নতুন সিলের প্রয়োজন হয়, তবে তা রেফ্রিজারেটর প্রস্তুতকারকদের কাছ থেকে সংগ্রহ করে নেয়া যাবে।

ফ্রিজ থেকে পানি পড়া বন্ধ না হলে করণীয়

ড্রেন হোল, পানি সরবরাহ,  দরজার সিল এবং ফ্রিজের অবস্থান সবকিছুই যদি পরীক্ষা করা সত্ত্বেও পানি পড়া বন্ধ না হয় তবে পেশাদারদের ফোন করার সময় হতে পারে। এক্ষেত্রে প্রথমে ফ্রিজ গ্যারান্টির সময়ের মধ্যে আছে তা দেখার জন্য প্রথমে প্রস্তুতকারকের সাথে যোগাযোগ করা ভাল, সেক্ষেত্রে কোনও পুরানো যন্ত্রের সংশোধনের জন্য কোন প্রকার চার্জ নেয়া হবেনা।

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

5 × one =