বাংলাদেশের প্রথম থ্রি ডি চলচ্চিত্র ‘অলাতচক্র’

করেছে Sabiha Zaman

আহমদ ছফা বাংলাদেশের অগ্রগামি লেখক, কবি, চিন্তাবিদ । তিনি বাংলাদেশের অন্যতম বুদ্ধিজীবী ও লেখক। তার লেখনি দিয়ে বাংলা সাহিত্যের নতুন পথের সূচনা হয়। তিনি তার লেখা দিয়ে বাংলার স্বাধীনতা, রাজনীতি, সামাজিক অবস্থান ফুটিয়ে তুলেছেন বারবার। আহমদ ছফার অন্যতম আত্মজীবনীমূলক উপন্যাস ‘অলাতচক্র’ এ উপন্যাসটি অবলম্বনে প্রথম বাংলা থ্রি ডি চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়েছে। ১৯ মার্চ ১৭টি সিনেমা হলে মুক্তি পায় থ্রি ডি চলচ্চিত্র ‘অলাতচক্র’।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন সময়ে শরণার্থী শিবিরে থাকা লেখক দানিয়েল ও ক্যানসারে আক্রান্ত তায়েবার প্রেম, সমকালীন সময়ের টানাপড়েন ও মুক্তিযুদ্ধের চিত্র নিয়ে রচিত উপন্যাসটি। ‘অলাতচক্র’ উপন্যাসটির গল্প ও নাম অনুসারেই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করেছেন হাবিবুর রহমান। তবে হুবহু উপন্যাস অনুসরণ না করে সাহিত্যের প্রয়োজনে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে সিনেমায়। ১৯৭১ সালের সেই উত্তাল দিনের বাইরের রসায়নগুলো মূলত চোখে পড়বে দর্শকের।

২০০২ সালে সাহিত্যে মরণোত্তর একুশে পদক প্রদান করা হয় আহমদ ছফাকে।

তায়েবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান আর লেখক দায়িয়েলের চরিত্রে আহমেদ রুবেল। ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে বাংলাদেশ সরকার থেকে ৬০ লক্ষ টাকা অনুদান পায় সিনেমাটি। ২০১৯ সালে সিনেমা নির্মান শুরু হলেও ‘অলাতচক্র’র চিত্রনাট্য নিয়ে কাজ শুরু হয়েছিল কয়েক বছর আগে থেকেই।

উপন্যাস নিয়ে কিছু কথা
আহমদ ছফার ডাইরি থেকে জানা যায় তিনি ১৯৭১ সালের এপ্রিলে কোলকাতায় চলে যান উদ্দেশ্য কলম দিয়ে যুদ্ধ করবেন। কারণ, সরাসরি যুদ্ধ করার ইচ্ছা থাকলেও ছফার নিকটজনেরা তাকে বোঝান যে যুদ্ধ করার জন্য অনেকেই আছে কিন্তু লেখুনি দিয়ে যুদ্ধ করার জন্যও লোক দরকার। তাকে হতাশ হতে হয়নি বাংলা সাহিত্যে আধিপত্য করেছেন শক্ত হাতে। ২০০২ সালে সাহিত্যে মরণোত্তর একুশে পদক প্রদান করা হয় আহমদ ছফাকে।

তায়েবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান আর লেখক দায়িয়েলের চরিত্রে আহমেদ রুবেল।

 

তিনি মুক্তিযুদ্ধকালীন স্মৃতি নিয়ে নিজ জবানিতে লিপিবদ্ধ করেন অলাতচক্র তবে প্রথমে প্রকাশ করেন ১৯৮৫ সালে সাপ্তাহিক নিপুণ পত্রিকার ইদ সংখ্যায়। কিন্তু সমালোচনা দেখা দিলে ১৯৯৩ সালে চরিত্রগুলোর নাম পরিবর্তন করে উপন্যাস হিসেবে পুনরায় প্রকাশ করেন ‘অলাতচক্র’। আহমদ ছফা উপন্যাসটিতে নিপুনভাবে মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপথ তুলে ধরেছেন। অলাতচক্রের অর্থ হচ্ছে আগুনের চক্র বা আগুনের বৃত্ত।

লেখা: সাবিহা জামান

ছবি : সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

4 × four =