বাথরুমে সবুজের ছোঁয়া

করেছে Shaila Hasan

শায়লা জাহানঃ

 

সবুজ দিয়ে ঘর সাজাতে বারান্দা ছাড়াও প্রথমে আমরা যে স্থানগুলো নির্বাচন করি তা হলো বেডরুম, ড্রয়িং রুম বা লিভিং রুম। আমরা প্রায়শই বাথরুমে প্রচুর গাছপালা দেখতে পাইনা, কারন সেখানকার পরিবেশ কিছুটা ওয়াইল্ডকার্ডের মতো। তাপমাত্রা, আর্দ্রতা,সুর্যালোকের স্বলতা বা আধিক্যতা এই সব নিয়ামক প্রভাবিত করে। সৌভাগ্যবশত এমন কিছু প্ল্যান্টস আছে যা এই পরিবেশেও ভালোভাবে টিকে থাকে।  

বাথরুমে প্ল্যান্টস যোগ করা একটি আলঙ্কারিক মাত্রা যোগ করার পাশাপাশি, নির্দিষ্ট কিছু উদ্ভিদের বায়ু বিশুদ্ধ করার গুণও রয়েছে। তবে সমস্ত গাছপালা যে এই স্থানের জন্য উপযুক্ত তা কিন্তু নয়, এক্ষেত্রে এর জন্য উপযুক্ত বিকল্পগুলো নির্বাচন করা গুরুত্বপূর্ণ। কোন ক্যাটাগরির গাছ এই খাতে পড়ে? বিশেষজ্ঞদের মতে, বাথরুমের জন্য সেরা হল ক্রান্তীয় প্রকৃতির গাছপালা। এই স্থানটি বাসার অন্যান্য স্থানগুলোর তুলনায় কিছুটা আলাদা। শাওয়ার থেকে আসা আর্দ্রতা, জানালার অবস্থানের উপর ভিত্তি করে পাওয়া সূর্যালোক সবকিছু এখানে ভিন্ন থাকে। এইজন্য বাথরুমে গাছ যোগ করার আগে তাদের মাটি, আলো এবং পানির চাহিদা সম্পর্কে একটু গবেষণা করে নিলে ভালো হয়। বাথরুম সাজাতে এমন কিছু গাছের ধারনা দেয়া হল-

সাকুলেন্টস

নাম দেখেই চমকে উঠলে? সাকুলেন্টস, যে কিনা এত নাজুক প্রকৃতির সেটা আবার বাথরুমে? সাকুলেন্টের মধ্যে এমন কিছু প্রজাতি আছে যা বাথরুমে ভালো কাজ করে। আমাদের খুব পরিচিত অ্যালোভেরা এবং এলিফেন্ট বুশের মত সাকুলেন্টগুলো বাথরুমের জন্য দূর্দান্ত। খুবই কম যত্ন এবং কম পানির মধ্যে এগুলো ভালোভাবে বেড়ে উঠতে পারে। অ্যাালোভেরা উজ্জ্বল আলো পছন্দ করে। তাই তা ভেন্টিলেটরের কাছে হ্যাংগিং টবে ঝুলিয়ে দিতে পারো।

পোথোস

যেহেতু, পোথোসগুলো মাঝারি থেকে কম, পরোক্ষ আলো পছন্দ করে, তাই এটি বাথরুমের শেলফ বা কাউন্টারে রাখার জন্য উপযুক্ত। যদিও পোথোতে অতিরিক্ত আর্দ্রতার প্রয়োজন হয়না, তবে এটি একটি বাথরুমের জন্য একটি দূর্দান্ত বাছাই কারণ এটি নিম্ন আলোর মাত্রা এবং অতিরিক্ত পানি সহনশীল।

এয়ার প্ল্যান্ট

এয়ার প্ল্যান্ট বাথরুমে সংযোজন করা একটি চমৎকার লুক দিবে। বাথরুমে যে আর্দ্রতা বজায় থাকে, তা এয়ার প্ল্যান্টের জন্য পারফেক্ট। এছাড়াও, প্রদর্শনের ক্ষেত্রে তারা তোমার সৃজনশীলতার জন্য আরও জায়গা ছেড়ে দেয়, কারণ তাদের প্ল্যান্টার বা কোন ধরনের পাত্রের প্রয়োজন হয়না। পানি এবং পুষ্টি শোষণ করার জন্য এরা শিকড় ব্যবহার করার পরিবর্তে, বায়ু থেকে উভয়ই শোষণ করে। এরা উজ্জ্বল,পরোক্ষ আলো এবং উচ্চ আর্দ্রতা সহ এমন পরিবেশে সুন্দর বেড়ে উঠে। তাই তোমার বাথরুমে যদি বড় রৌদ্রোজ্জ্বল জানালা থাকে, তবেই এই প্ল্যান্টস এড করতে পারো।

ফার্ণ

ফার্ণ প্রজাতির গাছগুলো খুব বেশি আর্দ্রতার মধ্যে ভালো বেড়ে উঠে। বাথরুম এমনিতেই আর্দ্রতাপূর্ণ স্থান, যার কারনে এই গাছ সেখানে সহজেই বেড়ে উঠবে।

স্নেক প্ল্যান্ট

স্নেক প্ল্যান্ট এমন এক গাছ যাকে সহজে মেরে ফেলা প্রায় অসম্ভব। এটি বাথরুমের জন্য দূর্দান্ত, নন-ফিনিকি একটি বিকল্প। এটি উজ্জল আলোতে দ্রুত বৃদ্ধি পায়, তবে কম আলোও সহ্য করতে পারে। এর উৎপত্তি পশ্চিম আফ্রিকায়, তাই এটি মরুভূমির মতো পরিস্থিতিতেও পরিচালনা করতে পারে। এর পানির রিকোয়ারমেন্টও কম থাকে।

স্পাইডার প্ল্যান্ট

স্পাইডার প্ল্যান্ট হল আরেকটি নো-ফাস বিকল্প। তারা কম আলো বা উজ্জ্বল আলো সহ্য করতে পারে, তবে নিশ্চিত করতে হবে যে তারা সরাসরি সূর্যালোকের সংস্পর্শে নেই, এতে স্পাইডার প্ল্যান্টস ঝলসে যাবার সম্ভাবনা থাকে। তারা একটু আর্দ্রতা পছন্দ করে, তাই শাওয়ারের জায়গা তাদের জন্য প্লাস পয়েন্ট।

ক্যালাথিয়া

বেশিরভাগ ক্যালাথিয়া আর্দ্র পরিবেশে বেড়ে উঠে, তাই এটি তোমার বাথরুমকে সুন্দর করার জন্য একটি দুর্দান্ত চয়েস। এবং এটি যেহেতু মাঝারি, পরোক্ষ আলো উপভোগ করে, তাই বাথরুমের জানালা কতটুকু ছোট বা গাছটি জানালা থেকে বেশি দূরে রাখা হয়েছে কিনা তা নিয়ে চিন্তা করতে হবেনা। কম আলোতে সহনশীল বলে এই গাছ সবারই পছন্দের।

অর্কিড

রঙবেরঙের অর্কিডও বাথরুমের শোভা বাড়াতে পারে। বাথরুমের ভেন্টিলেটরের পাশে অর্কিড রাখো অর্থাৎ যেখান দিয়ে পরোক্ষভাবে আলো আসে।

প্ল্যান্টস নির্বাচনের আগে বিবেচ্য বিষয়

বাথরুমে গাছপালা দিয়ে সাজানোর আগে এই চেকলিস্টটি মাথায় রাখতে হবে-

-উচ্চ আর্দ্রতায় সমৃদ্ধ এবং আর্দ্রতা সহ্য করতে পারে এমন গাছগুলো বেছে নিতে হবে।

-নিশ্চিত করতে হবে বাথরুমে একটি জানালা আছে যা থেকে প্রাকৃতিক আলো আসার পথ আছে। বাথরুমে যদি জানালা না থাকে, তাহলে একটি জীবন্ত উদ্ভিদ সম্ভবত সেরা ধারণা হবেনা। একটি প্ল্যান্টকে কিছু সময়ের জন্য হয়তোবা আলো থেকে দূরে রাখা যাবে তবে দীর্ঘ সময়ের জন্য নয়। আলো উদ্ভিদের জন্য খাদ্য এবং তাদের বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজন।

-যেখান থেকে পানি সরাসরি আঘাত করার চান্স থাকে সেখান থেকে গাছপালা দূরে রাখতে হবে।

-ড্রেনেজ ছিদ্রযুক্ত প্ল্যান্টার বেছে নিতে হবে বা এপিটাফের মতো এয়ার প্ল্যান্টারের সাথে যাও যার জন্য এক্সট্রা প্ল্যান্টারের প্রয়োজন হয়না।

এইসব বিষয় মাথায় রেখে তোমার পছন্দের গাছটি বেছে নাও আর বাড়িয়ে তুলো। হ্যাপি গার্ডেনিং।

-ছবি সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

twenty − fourteen =