মধুমিতার ফিটনেস রহস্য

করেছে Suraiya Naznin

রোদসী ডেস্ক-

পর্দায় তিনি পাখি নামে পরিচিত। তবে বাস্তবেও তিনি পাখির মতোই। তাকে নিয়ে সবার খুব আগ্রহ। ফিটনেস কিভাবে ধরে রাখেন তিনি। তবে কী খাওয়া-দাওয়া একেবারেই করেন না? আজ বলবো মধুমিতার ফিটনেস চার্ট নিয়ে-

 


মধুমিতার অভিনয়ে মুগ্ধ অনেকেই। কী খেয়ে সারা ক্ষণ এত প্রাণবন্ত থাকেন তাদের প্রিয় নায়িকা, তা নিয়েও কৌতূহলের শেষ নেই মধুমিতার অনুরাগীদের মধ্যে।

মধুমিতার রোজকার খাদ্যাভ্যাসের তালিকা-

সকাল

শ্যুটিং না থাকলে মধুমিতা খানিক বেলায় উঠতেই পছন্দ করেন। ঘুম থেকে ওঠার পর গ্রিন টি-র কাপে চুমুক দেন। সঙ্গে থাকে তাঁর পছন্দের বিস্কুট।

প্রাতরাশ

বিশেষ ভারী কোনও খাবার মধুমিতার সকালের খাবারে থাকে না। দু’টি ডিম সেদ্ধ এবং মৌসুমী দু’-একটি ফলই তার খাবারে বরাদ্দ।

দুপুরের খাবারে

বাড়িতে থাকলে মধুমিতার দুপুরের খাবারে থাকে অল্প পরিমাণ ভাত, বেশ খানিকটা সব্জি আর মাছ। শ্যুটিংয়ে থাকলে মধুমিতা দুপুরে খান বেকড চিকেন, কখনও বা বেকড ফিশ। মাঝে মাঝে ছাতুর শরবতও খেয়ে থাকেন তিনি।

সন্ধ্যের খাবারে

মধুমিতা একেবারেই খাদ্যরসিক নন। ছোট থেকেই খাবারের প্রতি তার ভীষণ অনীহা। তবে ফুচকা খেতে ভীষণ ভালবাসেন। সময় পেলেই বেরিয়ে পড়েন ফুচকা খেতে। ফুচকা ছাড়াও আরও একটি খাবার মধুমিতার পছন্দের তালিকায় রয়েছে। তা হল ‘ডায়নামাইট চিকেন’। মধুমিতার কাছে আসলে ওটা ‘চিলি চিকেন’। কারণ ওটাতে চিকেন আর লঙ্কা ছাড়া আর কিছুই থাকে না।

নৈশভোজে

ঘড়ির কাঁটা ৮টায় পৌঁছনোর আগেই মধুমিতা তাঁর রাতের খাওয়া সেরে নেন। নৈশভোজে বিশেষ কোনও বিধিনিষেধ তাঁর নেই। ভাত, রুটি হোক বা বাড়িতে তৈরি বিরিয়ানি, রাত ৮টার আগে কিছু একটা খেয়ে নেন তিনি।

 

শরীরচর্চা

নিয়ম করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা জিমে কাটাতে পছন্দ করেন না তিনি। জিমের বদলে ঘাম ঝরাতে বাবার সঙ্গে টেবিল টেনিস খেলতেই বেশি পছন্দ করেন মধুমিতা। অভিনয়ের প্রয়োজনে মার্শাল আর্টেরও প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। মধুমিতার মতে, ওজন কমানোর জন্য যে সব সময়ে ব্যায়াম, যোগ অথবা জিমে গিয়ে কঠোর পরিশ্রম করতেই হবে, তার কোনও মানে নেই। বরং কেউ যদি নাচ করতে বা সাঁতার কাটতে ভালবাসেন, সেটাই নিয়ম করে করা উচিত।

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

nineteen − three =