মেনোপজ মানেই জীবন শেষ নয়

করেছে Sabiha Zaman

গুলশান আরার মনমেজাজ কিছুদিন ভালো যাচ্ছে না। শারীরিক জটিলতার সম্মুখীন হচ্ছেন তিনি। নিজের এ পরিবর্তনের বিষয় নিয়ে আলাপ করলেন ছোটবেলার বান্ধবী পায়েলের সঙ্গে। গুলশান জানতে পারলেন তার আসলে মেনোপজের সময় এসেছে। গুলশানের মতো অনেক নারীই জানেন না মেনোপজের বিষয়ে। অনেকে আবার এড়িয়ে চলেন। মেনোপজ নিয়ে আজকের আয়োজন। লিখেছেন সাবিহা জামান

মেনোপজ
মেনোপজ কী, সে বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা থাকা জরুরি। নারীদের জীবনের খুব স্বাভাবিক একটি স্তর মেনোপজ। বেশির ভাগ নারীর ক্ষেত্রেই ৪৫ থেকে ৫৫ বছর বয়সে মেনোপজ শুরু হয়। পিরিয়ড সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যাওয়াকেই মেনোপজ বলে। এ সময়টা নিয়ে অনেকের মধ্যেই বিভিন্ন ভীতি কাজ করে, কিন্তু এটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। নারীদের শরীরে ডিম্বাশয় গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থি, এখান থেকেই হরমোন নিঃসৃত এবং পিরিয়ডের মাসিক চক্র নিয়ন্ত্রিত হয়ে থাকে। বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে ডিমের পরিমাণ কমতে থাকে। একটা সময়ে পরিমাণ এতটাই কমে যায় যে পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যায়। একনাগাড়ে ১২ মাস পিরিয়ড বন্ধ থাকলে এ অবস্থাকেই মেনোপজ বলে। এটি একটি প্রকৃতিগত বিষয়। এটা নিয়ে ঘাবড়ানোর কিছু নেই।
মেনোপজ নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে ১৮ অক্টোবর বিশ্ব মেনোপজ দিবস পালন করা হয়। আর অক্টোবর মাসকেই মেনোপজ মাস হিসেবে পালন করা হয়। তাই মাসজুড়েই চলে মেনোপজ নিয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম। প্রতিবছর একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিপাদ্য বিষয় থাকে মেনোপজ দিবসের। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘হাড়ের সুস্থতার’। মেনোপজের পর হাড়ের ক্ষয় বেড়ে যায়। তাই হাড়ের সুস্থতার বিষয়টিকে কেন্দ্র করেই এবার এ দিনটি পালন করা হবে। ইন্টারন্যাশনাল মেনোপজ সোসাইটির উদ্যোগেই প্রথম এ দিবস পালন করা শুরু হয়। তারা এটি নিয়ে বিশ্বে বিভিন্ন কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।


মেনোপজের তিন ধাপ

মানবশরীর অনেক জটিল। এক দিনে কোনো পরিবর্তন আসে না। আমাদের শরীরে পরিবর্তন আসে ধাপে ধাপে। ঠিক একইভাবে তিনটি ধাপ রয়েছে মেনোপজের। এগুলো হচ্ছে পেরিমেনোপজ, মেনোপজ এবং পোস্ট মেনোপজ। পেরিমেনোপজ বলা হয় মেনোপজ শুরুর আগের কয়েক বছর সময়কে। এই সময় আস্তে আস্তে মেনোপজের লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে। অর্থাৎ মেনোপজ শুরুর কয়েক বছর আগে থেকেই নারীর শরীর প্রস্তুত হতে থাকে। আর মেনোপজ হচ্ছে এই প্রক্রিয়া শুরুর পর থেকে এক বছর পর্যন্ত সময়কাল। শারীরিক পরিবর্তনের নানান সমস্যায় ভোগে নারী এ সময়েই। আর মেনোপজ-পরবর্তী সময়কেই বলা হয় পোস্ট মেনোপজ।

মেনোপজের উপসর্গ
হট ফ্ল্যাশ
মেনোপজের সময় সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে হট ফ্ল্যাশ। অতিরিক্ত গরম লাগে কোনো কারণ ছাড়াই। এসির নিচে থাকলেও ঘামতে থাকে নারীরা। এমনকি ঠান্ডার দিনেও এমন হতে পারে। কয়েক সেকেন্ড থেকে শুরু করে মিনিট দশেক পর্যন্ত হট ফ্ল্যাশ স্থায়ী হতে পারে।

মুড সুইং
ইসট্রোজেন হরমোনের ঘাটতি থাকে বলে সেরেটোনিন এবং ডোপামিন হরমোনের ইমব্যালান্স হয়। যার ফলে মুড সুইং হয়। এতে নারী অনেক সময় ভেঙে পড়ে। এ ছাড়াও বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়। তাই সামান্য বিষয়েই মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়। নিয়মিত ব্যায়াম, পর্যাপ্ত ঘুম, শরীরের যত্ন নিলেই এ সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে।

যৌনমিলনে অনীহা
যেহেতু স্বাভাবিকভাবেই মেনোপজের সময়ে নারীর শরীরে ইসট্রোজেন এবং প্রজেসটেরন হরমোনের উৎপাদন কমে যায়। ফলস্বরূপ শারীরিকভাবে যৌনমিলনের আগ্রহ অনেকটা কমে যায়। ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়াই শ্রেয়।
ওজন বৃদ্ধি
ওজন বৃদ্ধি একটা অন্যতম সমস্যা। ইসট্রোজেন এবং প্রজেসটেরন হরমোন হ্রাস পায় শরীরে। তাই সন্তান উৎপাদনক্ষমতাও কমতে থাকে। এই হরমোনের অভাবে ওজন বাড়তে থাকে। অতিরিক্ত ওজনের কারণে হাঁটু, কোমর এবং পিঠের ব্যথায় ভোগে অনেকে। সঙ্গে দেখা দেয় অন্যান্য শারীরিক জটিলতা। নিয়মিত ব্যায়াম ও শরীরের যত্ন ও উপযুক্ত ডায়েট ওজন বৃদ্ধির সমস্যা থেকে রেহাই পেতে সাহায্য করে।

চুল পড়া
হঠাৎ করে অনেক চুল পড়া শুরু হয় এ সময়। তবে চুল পড়াটা স্থায়ী নয়। মূলত ইসট্রোজেন এবং প্রজেসটেরন হরমোনের উৎপাদন কমে যায় এ সময়। এ কারণেই চুল পড়তে থাকে। নিয়মিত ব্যায়াম করা, পুষ্টিকর ডায়েট মেনে চললে এটি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।

জয়েন্ট পেইন ও হাড়ক্ষয়
বিভিন্ন গবেষণা আর নারীদের মতামত থেকে জানা যায়, এ সময়ে তারা জয়েন্ট পেইনের সমস্যায় ভোগে। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ব্যথা হয়, বিশেষ করে হাঁটু, কনুই, আঙুল, পিঠে এ সময় ব্যথা হয়। মেনোপজের সময়ে অথবা মেনোপজের পর হাড়ক্ষয়ের সমস্যা দেখা দেয়। এ সমস্যাগুলো দেখা দিলে বসে না থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।
নারীর শরীরের মেনোপজে অনেক প্রভাব পড়ে। অনেকেই ভয় পেয়ে যায়। সমাজে মেনোপজ নিয়ে বিভিন্ন ভিত্তিহীন ধারণা রয়েছে। অনেক নারী এ বিষয়ে কিছুই জানে না। অথচ এটি খুব স্বাভাবিক একটি বিষয়। এ সময়ে নারী অনেক ঘাবড়ে যায়। তাই পরিবারের সদস্যদের উচিত তার পাশে থাকা। ভুল ধারণা নিয়ে বসে না থেকে মেনোপজের সময় শারীরিক জটিলতা দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলতে হবে।

তথ্যসূত্র : বিবিসি ও ইন্টারন্যাশনাল মেনোপজ সোসাইটি

 

 

 

 

 

 

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

seventeen − twelve =