ম্যাজিক আছে ভ্যাসলিনে

করেছে Shaila Hasan

শায়লা জাহান

 

শীত এলেই সকলের হাতে হাতে যে জিনিসের দেখা মেলে তা হল ভ্যাসলিন। ঠান্ডার শুষ্কতায় ফাটা ঠোঁট থেকে বাঁচতে এর কোন জুড়ি নেই। মূলত ১৮৬৫ সালে রসায়নবিদ রবার্ট চেসব্রো শুষ্ক ত্বক নিরাময়ের জন্য পেট্রোলিয়াম জেলি ফর্মুলা পেটেন্ট করেছিলেন। এর ঘন সামঞ্জস্য আমাদের ত্বকে বিস্ময়কর কাজ করে। ডার্মালোজিস্টদের মতে, পেট্রোলিয়াম জেলি অ্যালার্জি খুবই বিরল, এটি এমনকি সংবেদনশীল ত্বকের জন্যও নিরাপদ। তবে এর ঘনত্বের কারনে ত্বকের পোরস আটকে যেতে পারে যদি পরিমানে বেশি ব্যবহার করা হয়। ত্বকের যত্নের বাইরেও ভ্যাসলিনের সাহায্যে এমন অনেক কাজ করা যায় যা আমাদের অনেকেরই অজানা। এমন কিছু ভিন্ন ব্যবহার দেখে আসি।

 সুগন্ধীর জন্য ত্বক প্রস্তুত

ময়েশ্চারাইজড ত্বকে সুগন্ধ আরও ভালো থাকতে পারে। তাই তোমার সুগন্ধ দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য স্প্রে করার আগে পালস পয়েন্টে কিছু ভ্যাসলিন ঘষে নাও। পালস পয়েন্টগুলো সারা শরীর জুড়ে সুগন্ধ ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। এর মধ্যে রয়েছে কব্জী, ভেতরের কনুই, হাঁটুর পিছনে এবং ঘাড়।

চুল নিয়ন্ত্রন

ভ্যাসলিন ব্যবহার করে ফ্রিজ চুলকে নিয়ন্ত্রন করা যায়। এছাড়াও শুকনো, স্প্লিট প্রান্ত এবং এমনকি অনিয়ন্ত্রিত ভ্রুকে সঠিক জায়গায় রাখতে এটি সাহায্য করে।

ত্বকের যত্নে

ভ্যাসলিন নন-কমেডোজেনিক, তাই এটি সবধরনের ত্বকের জন্যই মানানসই। ক্ষত ও শুষ্কতার জন্য সবচেয়ে উপকারী। তবে তৈলাক্ত, ব্রণ-প্রবণ ত্বকে ময়েশ্চারাইজার হিসেবে ত্বকে ব্যবহার করা ঠিক না।

হাইলাইটার হিসেবে

হাইলাইটারের মত করে ভ্যাসলিন হাল্কা করে দেয়া যেতে পারে। কিছুটা ডিউয়ি এবং ন্যাচারালি গ্লো দেখাতে চাইলে গালের উঁচু স্থানে ড্যাব ড্যাব করে লাগিয়ে নেয়া যেতে পারে। তবে যদি মনে হয় এতে পোরস আটকে যাবার চান্স থাকে তবে তা বাদ দেয়া যেতে পারে।

দাগ দূরকারী

একটি স্যাঁতস্যাঁতে ওয়াশ ক্লথ দিয়ে কাপড়ের পাশাপাশি বালিশ, কম্বল এবং চাদর থেকে মেকআপের দাগ তুলতে ভ্যাসলিন ব্যবহার করা যেতে পারে। পেট্রোলিয়াম জেলির তেল একগুঁয়ে মেকআপের দাগ থেকে অন্যান্য তেল বের করতে সাহায্য করে।

ল্যাশ কন্ডিশনার

ভ্যাসলিন ল্যাশেও ব্যবহার করা নিরাপদ। অনেক সেলুন এবং স্পা ভ্যাসলিন বা পেট্রোলিয়াম জাতীয় পন্য ব্যবহার করে। যদি নো-মেকআপ লুক ট্রেন্ড ফলো করে থাকো তবে গাঢ় এবং চকচকে আইল্যাশের জন্য ভ্যাসলিন মাসকারা দেয়ার আগে ল্যাশের উপর এপ্লাই করলে চমৎকার ফল পাওয়া যাবে।

লেদার পলিশ

বুট, জুতা, ব্যাগ এবং যেকোন চামড়ার জিনিস যার পলিশিং প্রয়োজন তার উপর একটু ভ্যাসলিন ঘষে দাও আর চমক দেখো।

মেকআপ রিমুভার

অনেক সময় মেকআপ তোলার জন্য রিমুভার হাতের কাছে এভেলএবেল থাকেনা। এক্ষেত্রে ভ্যাসলিন হল দারুন বিকল্প যা সহজেই এবং স্মুথলি আইলাইনার, মাসকারা, শ্যাডো রিমুভ করতে সক্ষম।

কান এবং জুয়েলারির যত্ন

তুমি যদি প্রায়শই কানের দুল না পরে থাকো তবে কানের ছিদ্রে অনেকসময় সমস্যা দেখা দিতে পারে। এক্ষেত্রে নতুন করে কানে দুল পরার সময় কানের ছিদ্রে এবং দুলের পিনে একটু ভ্যাসলিন মাখিয়ে নিলে তা সহজেই প্রবেশ করতে পারবে। এছাড়াও আটকে থাকা ঋণ খুলতেও এটি সাহায্য করে।

লিপ স্ক্রাবার

শুষ্ক ঠোঁট? এক্ষেত্রে ভ্যাসলিন দারুন কাজে দেয়। ভ্যাসলিনের সাথে সামান্য চিনি মিশিয়ে নিজের স্ক্রাব তৈরি করা যায়। এছাড়াও এর সাথে সি সল্ট মিশিয়ে গোসলের সময় বডি স্ক্রাবার হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

মরিচা প্রতিরোধ

লোহার তৈরি জিনিসপত্র ক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা করতে এটি কাজে দেয়। ভ্যাসলিনের হালকা প্রলেপ দিয়ে রাখলে নিত্য ব্যবহার করা লোহার জিনিসগুলো ভালো থাকবে।

-ছবি সংগৃহীত

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

14 − 5 =