যে অভ্যাসে ভুঁড়ি বাড়ে

করেছে Rubayea Binte Masud Bashory

পেটের মেদ বাড়া দৃষ্টিকটু তো বটেই! স্বাস্থ্যের জন্যও ক্ষতিকর। একবার ভুঁড়ি বাড়তে শুরু করলেই বিপদ। তা কমানো মুশকিল হয়ে যায়। পেটের এই মেদ বাড়ার পেছনে রয়েছে অভ্যাসের প্রভাব। নিত্যদিনের সুঅভ্যাসই ঝরাতে পারে পেটের বাড়তি মেদ।

ট্রান্স ফ্যাট পরিত্যাগ করা

শরীরের জন্য সঠিক ফ্যাট খাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। সবচেয়ে অস্বাস্থ্যকর ফ্যাটগুলোর মধ্যে একটি হলো ট্রান্স ফ্যাট। এটি পেটের চর্বিই নয়, পুরো শরীরের ওজন বাড়িয়ে দিতে পারে। পাশাপাশি দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতা যেমন কার্ডিওভাসকুলার রোগ, ডায়াবেটিস, ক্যান্সারসহ অনেক রোগের বাসা বাঁধতে পারে এই ট্রান্স ফ্যাটের কারণে। বেকারি এবং প্যাকেটজাত পণ্যে ট্রান্স ফ্যাট বেশি থাকায় এই খাবারগুলো পরিত্যাগ করতে হবে। খেতে হবে প্রচুর ফাইবার এবং দানাদার শস্য জাতীয় খাবার, সবুজ শাকসবজি। খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে পুষ্টি এবং খনিজ সমৃদ্ধ খাবার।

Fibre Vegetables And Fruits, HD Png Download , Transparent Png Image -  PNGitem

 

অলসতা কমাতে হবে

আরাম প্রিয়দের ভুঁড়ি বাড়বেই। তবে মেদ ঝরাতে হলে অভ্যাসের পরিবর্তন করতে হবে। মেদ কমাতে সকালে উঠেই হালকা ব্যায়াম করে নিলে শরীরের ফ্যাট বার্ন করার পাশাপাশি দিনের শুরুটা হয় চমৎকার। তারপর সারাদিনে কম দুরত্বের রাস্তা হেঁটে যাওয়ার অভ্যাস করতে হবে আর বিকেলে শরীরচর্চায় মনোযোগী হতে হবে। এমন জীবনযাপনে অভ্যস্ত হলে অলসতাও কাটে আর কমে পেটের বাড়তি মেদ।

Is exercise in a hot room good for you? | The Star

চিনিযুক্ত খাবার পরিহার

চিনিযুক্ত খাবাওে ভুঁড়ি বেড়ে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে বেশি। কারণ চিনিযুক্ত খাবার এবং পানীয়, পরিশোধিত কার্বোহাইড্রেট শরীরচর্চায় বার্ন করা কঠিন হওয়ায় চর্বি হিসেবে জমা হয়ে মেদ বাড়িয়ে দেয়। তাই চিনির বদলে স্বাস্থ্যকর কার্বোহাইড্রেট গ্রহণ করতে হবে।

You Should Never Drink Soda Before Exercising. Here's Why

অ্যালকোহল গ্রহণ বন্ধ করা

 

ভুঁড়ি বাড়ানোর জন্য দায়ী হতে পারে অ্যালকোহল। কারণ অ্যালকোহলযুক্ত পানীয়গুলো শরীরে ক্যালোরি সরবরাহ করলেও থাকেনা কোন পুষ্টি। ফলে পেটে জমে বাড়তি মেদ আর বাড়ায় ওজন। তাই অ্যালকোহলের বদলে পানি পানের অভ্যাস করা জরুরী। পানি শরীরকে ভেতর থেকে আর্দ্র রাখে। তবে হঠাৎ অ্যালকোহল ত্যাগ করা কঠিন। ধীরে ধীরে অ্যালকোহল গ্রহণ কমিয়ে দিতে হবে। তারপর নির্মেদ ও ঝরঝরে শরীর পেতে একেবারে অ্যালকোহল গ্রহণ করা বন্ধ করে দিতে হবে ।

পেটে বাড়তি মেদ জমতে দেয়া যাবে না কোনভাবেই। স্বাস্থ্য ও ওজনের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে খাদ্যাভ্যাস। তাই পরিমিত খাদ্যভাস, পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে। আর সুনিয়ন্ত্রিত জীবনযাত্রায় অভ্যস্ত হওয়ার বিকল্প নেই।

Say no to drinking alcohol and stay healthy – Mysuru Today

লেখা :  রোদসী ডেস্ক

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

two × 1 =