সন্তানদের সৃজনশীলতা বিকাশের উপায়

করেছে Shaila Hasan

শায়লা জাহানঃ

যখন আমরা ক্রিয়েটিভিটি বা সৃজনশীলতা সম্পর্কে কথা বলি, আমরা প্রায়শই মনে করি এটি এমন একটি প্রতিভা যার সাথে আমরা জন্মগ্রহণ করেছি। হয় তুমি স্বাভাবিকভাবেই একজন সৃজনশীল ব্যক্তি অথবা তুমি নও, এবং এটি অনেকাংশে সত্যও।  যদিও অভিভাবকারা অল্প বয়সেই তাদের সন্তানদের সৃজনশীল চিন্তা করার ক্ষমতাকে লালন করতে পারেন। তাদের সেভাবে বেড়ে উঠার জন্য শেখানো এবং উৎসাহিত করার ক্ষেত্র তৈরি করতে পারেন। যদিও তুমি গ্যারান্টি দিতে পারো না যে, বাচ্চা পরবর্তী পিকাসো হবে, কিন্তু তাদের সৃজনশীল ভাবে চিন্তা করার জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত সরঞ্জাম উপহার দিতে পারো। আর্ট প্রজেক্ট, বিল্ডিং ব্লক এবং কল্পনাপ্রসূত খেলার মতো ক্রিয়াকলাপগুলো বাচ্চাদের তাদের সৃজনশীল চিন্তার দক্ষতা উন্নত করতে এবং তাদের কল্পনাকে আলোকিত করতে সাহায্য করতে পারে।

কেন সৃজনশীলতা গুরুত্বপূর্ণ?

এটি বাচ্চাদের জ্ঞানীয় ক্ষমতা উন্নত করার পাশাপাশি মেজাজ এবং সুস্থতার উন্নতি করতে পারে। ব্রুকলিন কলেজের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, আঁকাআঁকি শিশুদের শিশুদের শান্ত করতে সাহায্য করে। এবং তারা যখন একটি সৃজনশীল প্রকল্পে মনোনিবেশ করে, তখন তারা আরও বেশি সুখী বোধ করে।

 

সৃজনশীলতা বিকাশের উপায়

-সৃজনশীলতার বিকাশ মন থেকে শুরু হয়। এটি মস্তিষ্কের জ্ঞানীয় ক্ষমতাকে উন্নত করতে পারে। গবেষণা অনুযায়ী, সৃজনশীল চিন্তা আমাদের মস্তিষ্কের স্নায়বিক সংযোগ বিকাশ এবং নতুন ধারণা শিখতে সাহায্য করতে পারে। এক্ষেত্রে বাচ্চাদের মনে নতুন নতুন চিন্তাভাবনা তৈরিতে সহায়তা করতে হবে। তাদের এমন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করো যা তাদের মনে নতুন ভাবনার খোরাক সৃষ্টি করে। এছাড়াও, তাদের অনুসন্ধিৎসু মনে সেখানে কী আছে তা খুঁজে বের করতে, কল্পনা করতে সাহায্য করতে পারো। তাদের এমন জিনিস খুঁজে পেতে সাহায্য করতে পারো যা তাদের সৃজনশীলতার জন্য লঞ্চিং পয়েন্ট হিসেবে শুরু হবে।

-সৃজনশীলতা এমন কিছু নয় যার উদ্ভাবনের প্রয়োজন, এটি সবার মধ্যেই একটি মাত্রায় বিদ্যমান। আমাদের বাচ্চারা যখন স্রিজনশিলভাবে নিজেদের প্রকাশ করতে শিখতে শুরু করে, তখন আমাদের উচিৎ তাদের এই প্রক্রিয়ায় উৎসাহিত করা এবং তাদের মনে করিয়ে দেয়া এটি জটিল নয়।

-বাচ্চাদের প্রশ্ন করা শিখাতে হবে। সাইকোলজি টুডে-র সাথে একটি নিবন্ধে গবেষক মেলিসা বার্কলে শিশুদের সৃজনশীলতা বাড়াতে তাদের জিজ্ঞাসা করতে শেখানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

-বাচ্চারা নিরুৎসাহিত বোধ করতে পারে যখন তারা প্রথমবার কিছু চেষ্টা করে সফল না হয়। কিন্তু ভুল প্রায়ই আমাদের সাফল্যের চেয়ে বেশি শেখায় এবং সন্তানকে নতুন, সৃজনশীল সমাধান চেষ্টা করতে উৎসাহিত করতে পারে। তাই বাচ্চারা যখন নতুন কিছু শিখতে চায় বা করতে চায়, তাতে সফল হতে না পারলেও তাতে নিরুৎসাহিত না করে ভিন্ন আঙ্গিকে দেখতে সাহায্য করতে পারো।

-ডেনিশ গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন যে প্রকৃতিতে বের হওয়া শুধুমাত্র মানসিক স্বাস্থ্যের জন্যই ভালো নয়- এটি সৃজনশীলতাকেও উন্নত করতে পারে। তাদের গবেষণায় দেখা গেছে যে, বাইরে সময় কাটানো কৌতুহল বাড়াতে পারে, নমনীয় চিন্তাভাবনাকে উৎসাহিত করতে পারে এবং রিচার্জ করতে সাহায্য করতে পারে। তুমি যখন বাচ্চাকে বসার ঘর থেকে গাছের ছায়ায় নিয়ে যাও তখন এটির পার্থক্যটি দেখ। সন্তানের মনকে সতেজ করতে এবং তাদের একটি ভাল মস্তিষ্ক বৃদ্ধি করতে আশেপাশে হাঁটতে বেরিয়ে যাও।

-সৃজনশীলতা শেখার আরেকটি গুরুত্বপূর্ন উপাদান হল প্রতিক্রিয়া। বাচ্চারা তাদের কাজ সম্পর্কে তুমি কি ভাবছো তার ফিডব্যাক পেতে চায়। তাদের সমালোচকের প্রয়োজন নেই, তবে তারা জানতে চায় তোমার প্রিয় অংশ কি? তাই তোমার প্রিয় দিকটি চিহ্নিত করো এবং তা তাদের বর্ননা করো।

-একটি সত্যিই সহজ উপায় হল বাচ্চাদের নতুন জিনিস আবিষ্কার করার কথা মনে করিয়ে দিয়ে আরও এগিয়ে যেতে উৎসাহিত করা। যদি তারা কিছু লিখতে পছন্দ করে তবে তাদের একটি বই দাও যা লেখার বিভিন্ন শৈলী বর্ননা করে। অথবা তাদের একটি একটি ভিডিও ক্যামেরা দাও এবং তাদের স্পিলবার্গ-স্টাইলের কিছু শুট করতে দাও।

-একসাথে পড়ো। তুমি জানো কি পড়া তোমার সন্তানের কল্পনাশক্তি এবং সমস্যা সমাধানের দক্ষতা বাড়াতে পারে। প্রতিদিন একসাথে কিছু সময় একটি ছবি বা অধ্যায় পড়ার লক্ষ্য তৈরি করতে করো। যদি তোমার বইটিতে ছবি থাকে তবে একসাথে পড়ার আগে বাচ্চাকে ছবিটি কি সম্পর্কে তা অনুমান করতে বলো। এটি শিশুদের সমস্যা সমাধান অনুশীলনের পাশাপাশি পড়ার বোঝার অনুশীলন করতে সহায়তা করতে পারে।

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

ten − 5 =