স্মার্টওয়াচ সমাচার

করেছে Sabiha Zaman

সাবিহা জামান: একটা সময় ছিল, যখন ঘড়িতে এত বেশি ভেরিয়েশন ছিল না। ঘড়িকে খুব দামি উপহার বলে বিবেচনা করা হতো। বিয়েবাড়ি থেকে শুরু করে জন্মদিন কিংবা প্রিয়জনকে উপহার দেওয়ার ক্ষেত্রে ঘড়ি ছিল চমৎকার একটি উপহার। সময়ের পরিবর্তন এসেছে, এখন শুধু ঘড়ি মানে ক্যাসিওর ঘড়িই না। নব্বইয়ের দশকে যাদের বেড়ে ওঠা, তাদের কাছে ক্যাসিও ঘড়ির স্মৃতি আজও ভোলার না। শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বজুড়েই সর্বাধিক জনপ্রিয় ছিল ক্যাসিও ব্র্যান্ডের ঘড়ির মডেলগুলো। এখন সময়ের সঙ্গে এসেছে নানান পরিবর্তন।

ঘড়ির নানান ব্র্যান্ডের পাশাপাশি এসেছে বিভিন্ন পরিবর্তন। বর্তমান সময়ে খুব দ্রুত জনপ্রিয়তা পাচ্ছে স্মার্টওয়াচ। প্রযুক্তি ও ফ্যাশনপ্রিয় যারা, তাদের কাছে স্মার্টওয়াচ আছে পছন্দের তালিকায়। তুমি যদি স্মার্টওয়াচ ব্যবহারকারী হও কিংবা স্মার্টওয়াচ কেনার পরিকল্পনা করো, তবে তোমার জন্যই রোদসীর আজকের আয়োজন। আজ কথা বলব স্মার্টওয়াচ নিয়ে।

স্মার্টওয়াচ কেনার আগে

ঈদ সামনে রেখে নিজের জন্য বা প্রিয়জনের জন্য হয়তো কিছু কেনার পরিকল্পনা করছ। পছন্দের তালিকায় রাখতে পারো স্মার্টওয়াচ। ফ্যাশন আর প্রযুক্তির সংমিশ্রণে সেরা একটি উপহার হচ্ছে স্মার্টওয়াচ। তুমি যদি এই ঈদে স্মার্টওয়াচ কেনার বিষয়ে ভাবো, তবে কয়েকটি বিষয় খেয়াল রাখবে। স্মার্টওয়াচ কেনার আগে যে বিষয়গুলো বিবেচনা করবে, নিচে সেগুলো দেওয়া হলো।

ব্র্যান্ড ও দাম

বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচ পাবে। কিছু ননব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচ পাবে কম দামে কিন্তু এগুলো টেকসই হয় না। স্মার্টওয়াচ কিনতে গেলে ভালো ব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচ কিনবে। স্যামসাং, অ্যাপল, হুয়াওয়ে, শাওমি, সনি, অ্যামেজফিট ও আসুসের স্মার্টওয়াচের দেখা মিলবে বাজারে। ভালো ব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচ টেকসই বেশি আর যাকে উপহার দিতে চাও, সে-ও খুশি হয়ে যাবে।

৩ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকাতেই দেখা মিলবে বিভিন্ন ভালো ব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচের। তুমি যদি অ্যাপেল লাভার হও, তবে দাম বেশি পড়লেও উইনিক থাকবে সবার থেকে।

ডিসপ্লে
স্মার্টওয়াচ কেনার আগে ডিসপ্লের বিষয়টি নজরে রাখবে। ডিসপ্লেভেদে দামের তারতম্য দেখতে পারবে। ননব্র্যান্ডের স্মার্টওয়াচের মূল সমস্যা এগুলোর ডিসপ্লে নিম্নমানের হয়ে থাকে, তাই সহজেই নষ্ট হয়ে যায়। এলইডি ডিসপ্লে কি না, সেটি দেখে স্মার্টওয়াচ কিনবে। ডিসপ্লের ধরন দেখে নিতে হবে স্মার্টওয়াচ।


ব্যাটারি
আমরা মোবাইল ফোন কেনার ক্ষেত্রে যেমন ব্যাটারি নিয়ে দেখি, স্মার্টওয়াচের ক্ষেত্রেও এটি দেখতে হবে। স্মার্টওয়াচ কেনার আগে খেয়াল রাখতে হবে এর ব্যাটারি সক্ষমতার বিষয়টি।
স্মার্টওয়াচ কেনার আগে এটি কোন কাজে ব্যবহৃত হবে এবং কতক্ষণ চার্জ থাকলে সুবিধা হবে, তা বিবেচনা করা জরুরি।

অপারেটিং সিস্টেম
স্মার্টফোনে যেমন অপারেটিং সিস্টেম গুরুত্বপূর্ণ, স্মার্টওয়াচের ক্ষেত্রেও কিন্তু তাই। স্মার্টওয়াচ কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে এটা তোমার ফোনের সঙ্গে সংযুক্ত করা যায় কি না এবং কোন অপারেটিং সিস্টেমে চলছে, সেটির সঙ্গে তোমার ফোন যাবে কি না। যাদের হাতে যে ধরনের স্মার্টফোন থাকবে, তাদের সে অনুযায়ী স্মার্টওয়াচ কেনা সুবিধার। তোমার যদি অ্যান্ড্রয়েড ফোন থাকে, তবে ভালো হয় তুমি অ্যান্ড্রয়েডের স্মার্টওয়াচ নাও। কারণ, অনেক সময় দেখা যায় যে অ্যাপল ওয়াচ অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সঙ্গে যুক্ত হলেও অনেক কিছুই করতে পারবে না।

স্মার্টওয়াচের যত্ন
যত্ন না নিলে যত ভালো ব্র্যান্ডের পণ্যই কেনো, সেটা বেশি দিন টিকবে না। স্মার্টওয়াচের ক্ষেত্রেও তাই। যত্ন নিতে হবে। কীভাবে যত্ন নেবে, সেটি নিয়েই আজকের লেখা।

  • নিয়মিত চার্জ দেবে, তবে ২০% নামার পরে এর আগে চার্জ না দেওয়াই ভালো।
  • স্মার্টওয়াচ ফুল চার্জ হয়ে গেলে চার্জ থেকে খুলে ফেলো। অকারণে ফুল চার্জ হওয়ার পরও চার্জে রেখে দেবে না।
  • একটি পরিষ্কার স্থানে স্মার্টওয়াচ রাখো, যেখানে-সেখানে রাখলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। পাশাপাশি ডিসপ্লেতে দাগ পড়তে পারে।
  • ডিসপ্লে প্রটেক্টর ব্যবহার করো ডিসপ্লে রক্ষা করতে।
  • নির্দিষ্ট স্থানে চার্জার রাখো, যাতে হারিয়ে না যায়।

ছবি : সংগৃহীত

 

 

 

 

 

০ মন্তব্য করো
0

You may also like

তোমার মন্তব্য লেখো

four + nine =